নিজের স্ত্রীর উপর প্রতিশোধ নিতে পুরো বস্তি পুড়িয়ে দিলেন এক ব্যক্তি

নিজের স্ত্রীর উপর প্রতিশোধ নিতে পুরো বস্তি ধরিয়ে দিলেন এক ব্যক্তি। আমরা জানি প্রেম মানুষের জীবনকে পাল্টে দেয়। কিন্তু সেটা যখন জেদে পরিণত হয় তখন ভয়াবহ কান্ড ঘটে। রবিউল নামের মুর্শিদাবাদের এই বাসিন্দা দু বছর আগে নোয়াপাড়ার বস্তিতে থাকতে শুরু করে। তাদের দিনকাল খুব ভালো কাটছিল। কিন্তু এদের ঘরের কয়েকটা ঘর পরেই থাকতো রহমত,আর সমস্যাটা শুরু সেখান থেকেই ।

রবিউল এর স্ত্রী রহমতের শালার সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলে। পরবর্তীকালে রবিউলকে ছেড়ে চলেও যায়। এবার রবিউল বারবার তার স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনার অনেক চেষ্টা করেছিল, পাড়ার লোকজনের কাছে হাতে-পায়ে ধরেও ছিল। তবে তার স্ত্রী কারোর কথাই শোনে নি।

সুতরাং উপরের ঘটনায় প্রেম জেদে পরিণত হয় এবং রবিউল প্রতিশোধ নিতে তৎপর হয়ে ওঠে ।এক রাত্রে বস্তির পাশের বিয়ে বাড়িতে সবার নেমন্তন্ন ছিল। ফলে এই সুযোগ এর পরিপূর্ণ ব্যবহার করে রবিউল। সে রহমতের ঘরের পাশাপাশি গোটা বস্তিতে 50 মিটার লোহার তার বিছিয়ে দেয় এবং সব ঘরের সামনে আগুন লাগিয়ে দেয়। এভাবে সে পুরো বস্তিতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয় নিজের ঘরে লাগানো একটি প্লাগ থেকে। এর মধ্যে আগুন জ্বলতে দেখে ছুটে আসে সমগ্র বস্তির লোক। লোহার তারে পা লেগে তৎক্ষণাৎ মৃত্যু হয় রহমত ,সুলতান আহমেদ এবং জাকির হোসেনের ।

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে বাসিন্দারা রবিউল কে ধরতে যায়। কিন্তু রবিউল তাদের গায়ে কেরোসিন ছুড়ে দিয়েছে বলে এই অভিযোগ জানান পুলিশকে। ঘটনাস্থলে অনেকে আহত হয়েছেন এবং তাদেরকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কিছুদিন এই রবিউল পালিয়ে ছিল। তবে বৃহস্পতিবার তাকে বালিগঞ্জ স্টেশনে দেখা গেছে এবং পাড়ায় ধরে আনা হয়। পাড়ার লোকজন তাকে গণপিটুনি দেয় ।পুলিশ পরবর্তীকালে তাদের হাত থেকে রবিউলকে উদ্ধার করে এবং বিদ্যাসাগর হাসপাতালে ভর্তি করে। পুলিশ জানিয়েছে রবিউলেরএর অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক।

Robiul set fire to get revenge against his wife
Robiul set fire to get revenge against his wife