গম ‘চুরির’ অপরাধে সন্তানকে বেধড়ক মার, ভিডিও ভাইরাল, গ্রেপ্তার বাবা

প্রায়শই অমানবিক ভিডিও ভাইরাল হ‌ওয়ার ঘটনায় সংবাদের শীর্ষে উঠে আসে উত্তর‌প্রদেশের নাম। নিজের সন্তানকে ঘর থেকে গম নিয়ে তার বিনিময় মিষ্টি কেনায় বেধড়ক মারধর করলেন বাবা(11-year-old boy brutally beaten for stealing wheat)। মারধরের ভিডিও ভাইরাল হ‌ওয়ায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে বাবাকে। ঘটনাস্থল উত্তরপ্রদেশ এর মেওয়ালি গ্রাম।

জানা গিয়েছে, ১১ বছরের ওই কিশোর তার বাবার সঙ্গে থাকতেন। কিছুদিন আগেই বাবার সঙ্গে দাম্পত্য অশান্তির জেরে তার মা অন্যত্র এক আত্মীয়ের বাড়িতে চলে যান। ১১ বছরের ওই কিশোরের হঠাৎ মিষ্টি খাওয়ার ইচ্ছে হয়। সে বাবাকে না জানিয়ে বাড়ি থেকে সামান্য গম নিয়ে গমের বিনিময় মিষ্টি কেনে। সেই খবর জানার পরে ক্রোধের বশে ছেলেকে শিক্ষা দিতে, উল্টো করে ঝুলিয়ে শুরু করেন বেধড়ক মারধর। এমনকি তিনি সন্তানের গায়ে গরম জল ঢেলে দেন।

সন্তানের উপর অকথ‍্য অত্যাচার ধরা পড়েছে প্রতিবেশীদের ভিডিও-তে। কিন্তু ভিডিও দেখা গিয়েছে কেউ এসে ব্যক্তিকে মারধরে বাধা দেননি। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরেই জাগন থানার পুলিশ সন্তানের ওপর অকথ্য অত্যাচারের অভিযোগে গ্রেপ্তার করে কিশোরের বাবাকে।

পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃত বাবা বছর পঁয়তাল্লিশের গুড্ডু খান। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা গিয়েছে, তিনি তিন সন্তানের পিতা। যাকে মারধর করেছেন সে প্রথম সন্তান। স্ত্রীর সঙ্গে মনোমালিন্যে সম্প্রতি তার স্ত্রী আত্মীয়ের বাড়ি চলে যান। এখন তিন সন্তানের দেখভাল করতে হচ্ছে তাকে। বাড়ি থেকে গম নেওয়ায় অবশ্য গুড্ডু খান যা ‘চুরি’ বলেছেন। গম নিয়ে মিস্টি কেনায় তিনি রাগ সামলে রাখতে না পেরে মারধর করেছেন তার ছেলেকে।

পুলিশ গুড্ডু খানকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন, যে তিনি অমানবিক অত্যাচারের সময় কি মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন? গুড্ডু খান জানান তিনি মদ্যপ অবস্থায় সন্তানকে মারধর করেননি। গুড্ডু খানের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫ এবং ৩২৩ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। ইতিমধ্যে চিকিৎসার বন্দোবস্ত করা হয়েছে কিশোরের‌ও।