মুর্শিদাবাদের পাশাপাশি মালদাতেও সক্রিয় আল-কায়েদার মডিউল, জানা গেল এন‌আইএ-র জিজ্ঞাসাবাদে

সম্প্রতি মুর্শিদাবাদ থেকে ধৃত ৬ জন জঙ্গিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে উঠে আসছে বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর তথ্য (Al- Qaeda sleeping module active in Malda besides Murshidabad)। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে এনআইএর আধিকারিকরা জানতে পেরেছেন আকিস বা আল-কায়েদার ভারতীয় উপমহাদেশের যে সেল রয়েছে সেই সেলের সঙ্গে সরাসরি জড়িত এই ছয় জঙ্গি। আল-কায়েদার একটি শাখা হলো আকিস।

গত কয়েকদিনের ম‍্যারাথন জিজ্ঞাসাবাদে এন‌আইএ-এর আধিকারিক‌দের হাতে উঠে এসেছে নানা তথ‍্য। তদন্তের শুরুতে ছাপোষা বিষয় মনে হলেও এই ছয় জঙ্গি‌র আলকায়দা যোগ ধীরে ধীরে প্রকাশ হচ্ছে। ইতিমধ্যে এনআইএর আইটি সেলের তরফ থেকে জঙ্গিদের কাছ থেকে পাওয়া ল্যাপটপ, ফোন স্ক্যান করে বিভিন্ন সূত্র মিলেছে। সেখান থেকেই পাওয়া তথ্য অনুযায়ী একটি ২২ জনের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের সন্ধান মিলেছে।

arrested terrorists
ধৃত জঙ্গি

এই ২২ জনের মধ্যে ৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে মুর্শিদাবাদ থেকে। বাকিদের প্রোফাইল চেক করে জানা গিয়েছে দুজন মালদায় বাসিন্দা। মালদা কালিয়াচক ও বৈষ্ণব‌ঘাটার (Kaliachak and Baishnabghata, Malda) নাম উঠে আসছে। ইতিমধ্যে তৎপর হয়েছে এন‌আইএ-র তদন্ত‌কারীরা। মালদার কাছাকাছি বাংলাদেশ সীমান্ত থাকায় চিন্তা বেড়েছে তদন্তকারী আধিকারিক‌দের।

মুর্শিদাবাদের পাশাপাশি গত পরশু মালদাতে তল্লাশি চালানো হয় এনআইএর তদন্তকারীদের তরফে। কিন্তু বাকিদের খোঁজ না পেলেও মুর্শিদাবাদ থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ৬ জঙ্গিকে। এই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের অস্তিত্ব মেলার পরেই এনআইএ তদন্তকারীরা নিশ্চিত হয়েছে মুর্শিদাবাদের পাশাপাশি মালদাতেও সক্রিয় রয়েছে আল-কায়েদার শাখা সংগঠন আকিস। আল-কায়দা শুধুমাত্র সিরিয়া কিংবা আফগানিস্তান নয়, ভারতবর্ষে‌ও তাদের ঘাঁটি রয়েছে। এই আকিসের মাধ্যমে আল-কায়দার ভারতে প্রবেশ।

এনআইএ তদন্তকারীরা জানতে পেরেছেন, ধৃত জঙ্গিদের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ ছিল আল-কায়দার তাদের এবং সম্প্রতি দিল্লিতে নাশকতার ছক কষেছিল তারা (NIA finds that the terrorists have a connection with Al-Qaeda and plan to destroy Delhi)। খুব শীঘ্রই দিল্লিতে রেইকির জন‍্য যা‌ওয়ার কথা ছিল তাদের। দুই জঙ্গির ফোনে তল্লাশি চালিয়ে কাশ্মীরি কিছু ফোন নাম্বারের সূত্র মিলেছে। সেই থেকেই এনআইএ তদন্তকারীরা নিশ্চিত হয়েছে খুব শীঘ্রই তাদের নাশকতার পরিকল্পনা ছিল। যার জন্য তারা বিভিন্ন জায়গায় যোগাযোগ করছিলেন।