বিয়ের পূর্বেই কনে পঙ্গু, বর ভালোবেসে বিয়ে করল তাকে

সিনেমা যে বাস্তব থেকেই তৈরি হয়, আবার সিনেমার হাত ধরেই হয় বাস্তব, তা বারবার প্রমাণিত হয়ে গেছে। এখন আমাদের মনে পড়ে শাহিদ কাপুর এবং অমৃতার সেই সিনেমা বিবাহ। এত সুন্দর একটি সিনেমা সকলের মন ছুয়ে নিয়েছিল। যেখানে দেখা গিয়েছিল যে বিবাহের কিছু আগে হবু স্ত্রী পুড়ে গেলেও তাকেই বিয়ে করেছিল শাহিদ কাপুর। এবার তেমনই একটি সিন দেখল প্রতাপগড় এর বাসিন্দারা। (Bride becomes paralyzed just before marriage and bridegroom marries her with love in Pratapgarh Kunda Uttar Pradesh)

প্রতাপগড় কুণ্ড এলাকার বাসিন্দা আরতী মৌর্যের সঙ্গে বিয়ে হবার কথা ছিল পাশের গ্রামের অবদেশের। গত ৮ তারিখ তাদের বিয়ে হবার কথা ছিল। কিন্তু হঠাৎ করে ঘটে যায় একটি দুর্ঘটনা।বিয়ের দিন দুপুর বেলা নাগাদ একটি শিশুকে হঠাৎ করে বাঁচানোর জন্য নিজের বাড়ির ছাদ থেকে পড়ে যান আরতী। (Abadesh marries Aarati Maurya)

ছাদ থেকে পড়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভেঙে টুকরো টুকরো হয়ে যায় তার শিরদাঁড়া। শুধুমাত্র শিরদাঁড়া নয়, কোমর এবং পশমের শরীরের অন্যান্য অঙ্গ প্রত্যঙ্গ ভীষণভাবে চোট পায়। আনন্দের পরিবেশ নিমেষে বদলে যায় নিরানন্দে।ভর্তি করানো হয় প্রয়াগ রাজের একটি হাসপাতালে।

চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে জানান যে, আরতী পঙ্গু হয়ে গেছে। বেশ কিছু মাস যে আর নড়াচড়া করতে পারবে না। বিছানাতে থাকতে হবে তাকে। এমনকি অস্ত্রোপচারের পর সম্পূর্ণ সুস্থ হতে পারবে না সে। এই অবস্থায় স্বাভাবিকভাবেই বিয়ে ভেঙে যাওয়ার কথা।

এমন কথা ভেবে আরতির বাড়ির লোকেরা তার বোনের জন্য বিয়ের প্রস্তাব দেন হবু স্বামীর কাছে। কিন্তু অবধেশ একেবারে অন্য মানুষ। তিনি সকলকে স্পষ্ট জানিয়ে দেন যে তিনি অন্য কাউকে বিয়ে করবেন না।

অবদেশ হাসপাতালে গিয়ে তার হবু স্ত্রীর পরিচর্যায় হাত লাগান। বিয়ের যে লগ্ন ছিল, সেই লগ্ন তেই অনুষ্ঠান করে তিনি বিয়ে করবেন তার স্ত্রীকে, এমন কথা জানিয়ে দেন তিনি। তার জেদের কাছে হার মানতে হয় চিকিৎসক কে। অবশেষে স্ট্রেচারে অক্সিজেন এবং সেলাইন নিয়ে বিয়ে করতে যায় আরতী।

বাড়িতে সব রকম রীতিনীতি মেনে সিঁদুর পড়ানো হয় তাকে। শুধুমাত্র শ্বশুর বাড়ি যাবার বদলে তাকে ফিরে যেতে হয় হাসপাতালে। পরেরদিন অপারেশন হবার আগে ফর্মে সই করেন স্বয়ং স্বামী অবদেশ।

বিয়ের পর এক সপ্তাহের বেশি কেটে গেছে। কিন্তু এখনো স্ত্রীর সেবা থেকে পিছপা হননি স্বামী। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন যে, এখনো বেশ কিছুদিন আরতিকে হাসপাতাল থাকতে হবে। আরো কয়েক মাস বিছানা ছেড়ে উঠতে পারবে না সে। কিন্তু কোনো কষ্টই যেনো আর তাকে ছুঁতে পারছে না। হাসিমুখে স্বামীর দিকে তাকিয়ে সারা দিন কেটে যাচ্ছে তার।

Bride becomes paralysed just before marriage and bridegroom marries her with love
বিয়ের পূর্বেই কনে পঙ্গু, বর ভালোবেসে বিয়ে করল তাকে (Collected from Internet)