পাঞ্জাবে অজস্র কৃষক ভাঙচুর করলো ১,৫০০ জিও মোবাইলের টাওয়ার

কেন্দ্রের পাশ করা কৃষি আইন নিয়ে কৃষিকেরা যে আন্দোলন করছে,তা অনেক বড়ো আন্দোলনের সৃষ্টি করেছে। কৃষক সংগঠনের তরফ থেকে কেন্দ্রকে বলা হয়েছে এই কৃষি আইন সংক্রান্ত সমস্ত বিল প্রত্যাহার করে দেওয়ার জন্য। দিনের পর দিন তারা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। (Punjab News : Farmers destroy 1500 Jio Towers in Firozpur, Punjab as a protest of Farm Bill 2020)

কেন্দ্রের সঙ্গে পঞ্চম থেকে ষষ্ঠ দফার বৈঠক হয়ে গেছে কৃষক সংগঠনের কিন্তু এখনও পর্যন্ত এই কোনরকম সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি। অন্যদিকে যথেষ্ট বিক্ষোভে ফেটে পড়ছে পাঞ্জাবের কৃষক সংগঠন। বিক্ষোভ কারীদের দাবি করেছে যে, এই আইন যদি প্রচলিত হয় তাহলে আমাদের মত অনেক ব্যবসায়ী অনেক উপকৃত হবে।

এই আন্দোলন দিনের-পর-দিন চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। পাঞ্জাবের কৃষকদের বিক্ষোভ এতটাই চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে যে তারা পাঞ্জাবে বিক্ষোভ চলাকালীন, ভেঙেচুরে ফেললো অনেক মোবাইলের টাওয়ার। কৃষকরা পাঞ্জাবে মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স এর প্রায় ১,৫০০ টিরও বেশি টাওয়ার ভেঙে দিয়েছে, যায় এখন কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছে। জানা গেছে যে পাঞ্জাবের রিলায়েন্স জিওর প্রায় ৯,০০০ টি টাওয়ার রয়েছে এবং তার মধ্যে থেকে ১,৫০০ টি টাওয়ার একেবারে ভেঙে চুরমার করে দিয়েছে সেখানকার কৃষক বিক্ষোভকারীরা।

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর বিক্ষোভকারীদের কড়া হুমকি দিয়েছে এই রকম কাজ করার জন্য। জিও কর্তৃপক্ষ থেকে জানা গেছে যে টাওয়ারে যেরকম ভাবে ভাঙচুর করেছে তার জন্য অনেক জায়গাতেই বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে গেছে এবং তাদের পক্ষে পরিষেবা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। এই ধরনের বিক্ষোভ এর জন্য পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন যে, যারা এধরনের কাজ করেছে তাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে এইভাবে পাঞ্জাবকে ধ্বংসের মুখে যেতে দেওয়া যাবে না।

এরকমভাবে সরকারি এবং বেসরকারি যে সমস্ত সম্পত্তি গুলি রয়েছে তাদের যেভাবে ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে সেগুলো কখনোই মেনে নেওয়া যাবে না। পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে যারা এধরনের কাজ করেছে তাদের প্রতি কড়া ব্যবস্থা নিতে। যেহেতু এখন সমস্ত ব্যবস্থায় অনলাইনের মাধ্যমে হয় সেজন্যই এই ধরনের টাওয়ার ভেঙে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট অসুবিধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে পাঞ্জাবের মানুষকে।

Farmers destroy 1500 Jio Towers in Punjab as a protest of Farm Bill 2020
পাঞ্জাবে অজস্র কৃষক ভাঙচুর করলো ১,৫০০ জিও মোবাইলের টাওয়ার (Source : ANI)