25 জন পতিতার কন্যাদের পুরো দায়িত্ব নিলেন গৌতম গম্ভীর

ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার ও বিজেপির পূর্ব দিল্লির সাংসদ গৌতম গম্ভীর (Gautam Gambhir) মানব কল্যাণ মূলক কাজে ব্রতী হলেন। তিনি পতিতার মেয়েদের উন্নতির লক্ষ্যে একটি সমাজকল্যাণমূলক কার্যক্রম আরম্ভ করলেন ( Gambhir starts social works again)। তিনি দিল্লির জেবি রোডের আশেপাশে কর্মরত 25 জন যৌনকর্মীর কন্যা সন্তানদের সবগুলি কর্তব্য পালন করার কথা ঘোষণা করে দিলেন। তার সংস্থা তাদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য আর তাদের দৈনন্দিন জীবনে যা কিছু দরকার সবকিছুই সরবরাহ করবে। গতকাল অর্থাৎ জুলাই মাসের শেষ দিন থেকেই এই কার্যক্রমের শুভ মহরত করা হয়েছে।

তিনি এই সম্পর্কে কতকগুলো সুন্দর কথাও বললেন। তার মত অনুসারে,” সমাজে বসবাসরত প্রতিটি মানুষের স্বাভাবিক এবং দুর্দান্ত জীবন যাপন অতিবাহিত করার অধিকার রয়েছে। আর এই বাচ্চাগুলো যাতে করে দৈনন্দিন জীবনের চাহিদা গুলো পূরণ করতে পারে তা আমি নিশ্চিত করব।আমার প্রকৃত ইচ্ছা, এরা এদের নিজেদের স্বপ্নগুলো পরিপূর্ণ করে তুলুক। আমি ওদের অন্নসংস্থানের ব্যবস্থা, শিক্ষা এবং দৈনন্দিন যা প্রয়োজন সবগুলি সরবরাহ করব। 10 জন বাচ্চাকে দিয়ে এই শুভ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।

তিনি নিজেই বললেন,”পরবর্তীকালে আরো অন্যান্য বাচ্চাদের গ্রহণ করা হবে। আর কম করে 25 জনের সব রকমের দায়িত্ব-কর্তব্য আমি নিজের কাঁধে নেব।”

আরো বললেন,”কয়েকদিনের জন্য এদেরকে দিল্লির শেল্টার হোমে রেখে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এদের পরিচয় সম্পূর্ণরূপে গুপ্ত করে রাখা হয়েছে। এখানে পাঁচ থেকে 18 বছরের বাচ্চারা রয়েছে। আর তাদেরকে ক্রমাগত কাউন্সিলিং করানো হচ্ছে। আর এর মাধ্যমে তারা মানসিকভাবে দৃঢ় হতে সক্ষম হবে। আর এর ফলেই তারা যাতে নিজেদের পড়াশোনা থেকে মাঝ পথে বাদ না পড়ে যায় সেদিকে খেয়াল রাখা হবে।”

বিখ্যাত এই ক্রিকেটারের এই অভিযানটির নাম ‘পঙ্খ ‘(Pankh)। উনি জনদরদি লোকজনের কাছে একটি আবেদন রেখেছেন। উনি বলেছেন, কোন সহৃদয় ব্যক্তি যদি এই অসহায় বাচ্চাদের দিকে সাহায্য-সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে চান, তাদের ন্যূনতম শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাওয়া-দাওয়া এবং নিত্য প্রয়োজনীয় সমস্ত চাহিদা মেটাতে চান, তারা এই প্রকল্পের সাথে সানন্দে যোগদান করতে পারেন।”

“31 শে জুলাই আমার ঠাকুমার জন্মদিন। আর উনার আশীর্বাদ মাথায় নিয়ে আমি এই কর্মসূচি আরম্ভ করতে চাই,” জানালেন গম্ভীর।
প্রসঙ্গত, গম্ভীর ফাউন্ডেশন এই মুহূর্তে দেশের জন্য শহীদ হয়ে যাওয়া 200 জন জওয়ানের ছেলেমেয়েদের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল করার কাজে ব্রতী হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.