অযোধ্যার ভূমি পুজোয় আমন্ত্রণ পেলেন ইকবাল আনসারী

আগামী ৫ আগস্ট রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর অনুষ্ঠান নিয়ে প্রস্তুতি তুঙ্গে। গোটা অযোধ্যাতে এখন উৎসবের আমেজ এই অনুষ্ঠান‌ ঘিরে। এদিন মন্দিরের শিলান্যাস করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সোমবার থেকে শুরু হয়েছে এই অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণ পর্ব।

আর সেই পর্বেই প্রথম আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয় ইকবাল আনসারীকে। যিনি মামলা করেছিলেন অযোধ‍্যায় রাম মন্দির হ‌ওয়া রুখতে। রাম মন্দিরের ভূমিপুজো ও শিলান‍্যাস অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত নরেন্দ্র মোদী সহ আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত, উত্তর প্রদেশের রাজ্যপাল আনন্দীবেন প্যাটেল, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ও মহন্ত নিত্য গোপাল দাস অন্যান্য ব্যক্তিরা।

আমন্ত্রণপত্র পেয়ে উচ্ছ্বসিত ইকবাল আনসারী জানান, প্রভু রামের ইচ্ছাতেই এই শুভ অনুষ্ঠানে তিনি আমন্ত্রণ পেয়েছেন। তিনি আরো জানান যে, মন্দির তৈরি হলে অযোধ্যাতে কর্মসংস্থানের সুযোগ বাড়বে। বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে দর্শনার্থীরা এখানে আসবেন। তার ফলে অযোধ্যাবাসী উপকৃত হবেন। তিনি এর আগেও বলেছিলেন, যে কোন ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণ পেলে তিনি নিশ্চয়ই যাবেন। তাই অযোধ্যা রাম মন্দির নির্মাণ নিয়ে তিনি আন্তরিকভাবে খুশি।

অযোধ্যার এই ভূমি পুজোর অনুষ্ঠানকে ঘিরে প্রস্তুতি শুরু হয়েছে বহুদিন থেকেই। পুরো অযোধ্যা শহর হলুদ রঙে সেজে উঠেছে। ভূমি পুজো ও শিলান‍্যাসের অনুষ্ঠান শুরুতেই গৌরি-গণেশ পুজো শুরু হয়েছে আজ থেকে। যেখানে অংশ নিয়েছেন ১১ জন পুরোহিত। সমস্ত পুজোর শুরুতে নিয়ম মেনে গণেশ পুজো করা হয় বলেই, এক্ষেত্রেও তাই করা হয়েছে।

ইতিমধ্যে আগামীকালের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মহড়া শুরু হয়ে গিয়েছে পুরোদমে। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অযোধ্যাকে দুর্গের মতো করা হয়েছে। বহু ছোট ছোট রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সমস্ত বাড়ি সেজে উঠেছে রামায়ণের ছবিতে। ৫ তারিখ অকাল দীপাবলি পালন হবে অযোধ্যা জুড়ে। সমস্ত নিয়ম মেনে এদিনের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা হবে। এই অনুষ্ঠানে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ব‍্যবস্হা এবং সুরক্ষা ব্যবস্থা আঁটোসাটো করা হয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকারের পক্ষ থেকে। সব মিলিয়ে বলা যায় রাম মন্দিরের ভূমিপুজো ও শিলান‍্যাসের অনুষ্ঠানের উত্তেজনা ও ব্যস্ততা তুঙ্গে গোটা অযোধ্যা শহরজুড়ে।