ভয়ঙ্কর বিপদ !”পুনরায় ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার ধ্বংসের সম্মুখীন হবে যদি…”-লাদেনের ভাইঝি

আপনারা প্রত্যেকেই বিশ্ব বিখ্যাত জঙ্গী তথা বিজ্ঞানী ওসামা বিন লাদেন সম্বন্ধে অবগত আছেন (Infamous terrorist cum scientist Osama Bin Laden)। তিনি 2001 সালের সেপ্টেম্বর মাসে সকাল 8 টা 45 নাগাদ আমেরিকার বিশ্ব বিখ্যাত ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে প্লেন হাইজ্যাক করেছিলেন। আর সেখানে কুড়ি হাজার গ্যালন তেল ঢেলে দেন। আর এর ফলে মুহূর্তের মধ্যে হাজারো লোক মৃত্যুবরণ করে এবং কয়েক তলা বিল্ডিং সম্পূর্ণ ধ্বংস স্তুপে পরিণত হয়ে যায় (Osama Bin Laden Destroyed Twin Towers some portions World Trade Center in 2001)। তো চলুন বর্তমানে ফিরে আসি।

ওসামা বিন লাদেনের ভাইজির নাম নুর বিন লাদেন। তিনি হুংকার দিলেন। তিনি বললেন যে, পুনরায় 9/11 এর মত বিধ্বংসী হামলা করা হবে যদি জো বাইডেন নভেম্বরের ইলেকশনে জিতে যায় (Laden’s Niece Noor Bin Laden Warns against Joe Biden)। অর্থাৎ এই বিপদের ব্যাপারটি মোটেও উড়িয়ে দেওয়ার মতো নয়।

নিউইয়র্ক পোস্ট এর একটি ইন্টারভিউতে তিনিই সর্বপ্রথম প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে তার সাপোর্টের কথা জানিয়েছিলেন। তিনি জানান যে, 2016 সালে প্রেসিডেনশিয়াল ইলেকশনের সময় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মুসলিমদের আমেরিকা তে ঢুকতে বাধা দিচ্ছিলেন। তবে পরবর্তীকালে 2018 সালে সুপ্রিম কোর্ট এই ব্যাপারটির সমাধান করে।

নুর বিন লাদেন জানান,” 2015 সালে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জানিয়ে দেন যে তিনি ইলেকশনে ক্যাম্পেইন করতে শুরু করছেন। আর তখন থেকেই আমি ওনার সমর্থক। উনি যেভাবে, যে কৌশলে প্রত্যেকটা জিনিস কে সলভ করছেন তা আমি শ্রদ্ধা না করে পারি নি। তাকে অবশ্যই পুনর্নির্বাচিত করা প্রয়োজন। এটা শুধুমাত্র আমেরিকার নয় সম্পূর্ণ পশ্চিমী সভ্যতার ভবিষ্যতের জন্য ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ।”

তিনি আরো জানান,” ওবামা/বাইডেন এর শাসনকালে আইএসআইএস জঙ্গিগোষ্ঠী বিস্তার লাভ করে। তাছাড়া তারা ইউরোপে আঘাত করে। তিনি ডেমোক্র্যাটদের একহাত নিচ্ছেন কারণ তিনি মনে করেন তারা নিজেদেরকে মৌলবাদী ইসলামের সাথে এক করে দেখাতে চায়।”

আরো বললেন,”ট্রাম্প দেখিয়ে দিয়েছে যে কিভাবে আমেরিকাকে রক্ষা করতে হয়। তিনি এই কার্যটি সম্পন্ন করেছেন বহিরাগত সন্ত্রাসীদের আক্রমণের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করে। তারা আঘাত হানার পূর্বেই তাদেরকে সমূলে উৎপাটিত করে দিয়েছেন।”

প্রসঙ্গত, লাদেনের ভাইঝির জন্ম সুইজারল্যান্ডে। তিনি তার কাকার নামের উচ্চারণ একটু ভিন্নভাবে করেছেন। যদিও তিনি এবং তার পরিবার সুইজারল্যান্ডে বাস করেন, তবে এই 33 বছর বয়সেই মেয়েটি জানালো যে সে হৃদয়ের থেকে আমেরিকান। তাছাড়া সে তার ছোটবেলার রুমে আমেরিকার পতাকা টানিয়ে রেখেছিল। তাছাড়া সে তার ছুটি আমেরিকাতে বিনোদনমূলক ভ্রমণের সাহায্যে কাটাতে চেয়েছিল।

বিন লাদেন একটি টুপি এবং পোশাক পরিহিত অবস্থায় ফটো দিয়েছেন এবং লিখেছেন, মেক আমেরিকা গ্রেট এগেন (Make America Great Again- Writes Noor Bin Laden)। তাছাড়া ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করা হচ্ছে বলে তিনি সরব হয়েছেন। তাছাড়া, বিজনেস ইনসাইডার পত্রিকার মতে, তিনি ব্লাক লিভস ম্যাটার আন্দোলনকে তীব্র ভাবে আঘাত করেছেন।

অপরদিকে তিনি হলেন সুইজারল্যান্ডের লেখক কারমেন ড্যুফোর এবং ওসামা বিন লাদেনের বড় সৎ ভাই ইসলাম বিন লাদেনের কন্যা (Noor is the daughter of Carmen Dufour and Yeslam Bin Laden, half brother of Osama)। ১৯৮৮ সালে তার পিতা-মাতার মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে যায়। আর এর ফলে নূর এবং তার দুই বোন সুইজারল্যান্ডে প্রতিপালিত হয়।

অপরদিকে তার মাতা একটি বেস্ট সেলিং বই লিখেছিলেন। এই বইটির নাম “ইনসাইড দ্য কিংডম: মাই লাইফ ইন সৌদি অ্যারাবিয়া।” (Inside The Kingdom: My Life In Saudi Arabia- Carmen Dufour) তিনি এই বইটি 2004 সালে লিখেছিলেন। আর এই বইতে তিনি বিন লাদেনের পরিবারে থাকার সমস্ত প্রকার খুঁটিনাটি বর্ণনা করেছেন।