খাবারে মারণাস্ত্র মিশিয়ে গর্ভবতী হাতিকে হত্যা করলো গ্রামবাসী

আমরা যতই আগামীর দিকে এগোতে থাকছি অবলা প্রাণী দের উপর অত্যাচার ততোই বাড়িয়ে চলেছি। মানুষ বর্তমান সময়ে অল্প কিছু আনন্দ নেওয়ার জন্য অবলা প্রাণীর ক্ষতি করছে। কিন্তু এবারে নৃশংসতার চরম পর্যায়ে পৌঁছে গেল মানুষ। বাজি ভর্তি আনারস খাইয়ে এক গর্ভবতী হাতি কে হত্যা করা হলো। এই ঘটনাটি ঘটেছে কেরালার মালাপ্পুরম এলাকায়। হাতিটির খুব খিদে লেগেছিল। তাই সে খাবারের সন্ধানে জঙ্গল থেকে বেরিয়ে এসেছিল। কিন্তু সে কল্পনাও করতে পারেনি তার কপালে আজকেই মৃত্যু রয়েছে। গ্রামের লোকজন এই ক্ষুধার্ত গর্ভবতী হাতিটিকে আনারস খেতে দেয়। আর এই আনারস খাওয়ার ফলে হাতিটির জীবনে দুর্ভোগ নেমে আসে।

এটি কোন ভালো আনারস ছিলনা। এই আনারস টির মধ্যে বাজি ভর্তি ছিল। ফলে খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই বাজি ভর্তি আনারস হাতির পেটের মধ্যে ফেটে যায়। আর মুখ ও শুঁড় গুরুতরভাবে জখম হয়ে যায়। যন্ত্রণায় সে কাতরাতে থাকে। এরপর হেঁটে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে নদীর জলে শুঁড় ডুবিয়ে থাকে যাতে কষ্ট থেকে কিছুটা পরিত্রান পায়। কিন্তু কয়েক ঘন্টা জলের দাঁড়িয়ে থাকার পর মৃত্যু বরণ করে এই মা হাতিটি। হাতিটি দ্বারা কারো কোন প্রকার ক্ষতি হয়নি। সে কোন ঘর ভাঙ্গে নি। তবুও তার সাথে এরকম পশুর মতো ব্যবহার কেন করা হলো তার উত্তর এখনো পাওয়া যায়নি।

পোষ্টমর্টেমের পর মৃত গর্ভবতী মা হাতির পেটের মৃত শিশু

dead calf from the 6 months pregnant dead elephant
হাতির পেটের মৃত শিশু

কেরলের এক বনকর্মী মোহন কৃষ্ণান সোশ্যাল মিডিয়ায় এই খবরটি শেয়ার করেছেন। এরপর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘটনাটিকে সবাই নিন্দা করতে শুরু করে দিয়েছে। প্রত্যেকে এই ঘটনাটির ভয়ঙ্কর আকারে নিন্দা করছে। বনবিভাগ দপ্তরের আধিকারিক জানান যে, হাতিটিকে তারা জঙ্গলে নিয়ে গিয়ে সমাধিস্থ করে বিদায় দেন। আর এই হাতির শরীরে নতুন একটি প্রাণ আস্তে আস্তে বড় হচ্ছিল। দুর্ভাগ্য হলো এই যে, সে পৃথিবীর আলো দেখার আগেই মৃত্যুবরণ করল। তার মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। তাকে সম্মান জানাই।

হাই বন্ধুরা, প্রতিদিনের গুরুত্বপূ্র্ণ খবর পাওয়ার জন্য bangla.365reporter বুকমার্ক করে রাখুন। আর ফেইসবুক, টুইটার এবং পিন্টারেস্টে আমাদের সঙ্গে কানেক্ট করতে পারেন। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.