মমতার পরামর্শে সিদ্ধান্ত বদল করলো মোদী

আজ সোমবার থেকে সারা দেশজুড়ে বিমান পরিবহন ব্যবস্থা পুনরায় চালু করার পদক্ষেপ নিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু রাজ্যের পক্ষ থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর নির্দেশ অনুসারে রাজ্যের মুখ্য সচিব রাজীব সিনহা কেন্দ্রের কাছে একটি অনুরোধ জানিয়েছিল। তার অনুরোধ ছিল আপাতত রাজ্যে বিমান পরিবহন ব্যবস্থা স্থগিত রাখা হোক। তার অনুরোধে সাড়া দিয়ে কেন্দ্রের তরফ থেকে বলা হয়েছে যে, সোমবার থেকে দেশের অন্যত্র বিমান চলাচল শুরু হলেও বাংলায় চালু হবে না বিমান যোগাযোগ ব্যবস্থা।কেন্দ্র সরকারের সিদ্ধান্ত অনুসারে আগামী 28-শে মে থেকে 5% বিমান চলাচল শুরু হয়ে যাবে। এরপর আস্তে আস্তে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে অন্যান্য বিমানসমূহ ওঠানামা করবে।

এরকম সিদ্ধান্ত নেয়ার কারণ

মূলত কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের পর মুখ্যমন্ত্রী বক্তব্য দিয়েছিলেন, ঘূর্ণিঝড়ের ঝামেলার মাঝামাঝি সময়ে বিমান পরিবহন শুরু হয়ে গেলে যাত্রীদের রাখা নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি হবে। উপরন্তু তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা বিষয়ক বিভিন্ন প্রকার অসুবিধার সম্মুখীন হওয়া লাগতেও পারে। তাই তার বক্তব্য, রাজ্যে কিছুদিন বিমান চলাচল ব্যবস্থা বন্ধ রাখা হোক। মুখ্যমন্ত্রীর এই প্রস্তাব স্বীকার করেছে কেন্দ্র সরকার। এর পাশাপাশি গত 23 শে মে কেন্দ্রকে চিঠির মাধ্যমে রাজ্যে শ্রমিক ট্রেন প্রবেশ বন্ধ রাখতে অনুরোধ করেন মুখ্যসচিব।

একপাশে করোনার ভয়াবহ থাবা অন্যদিকে আম্ফানের তান্ডব এর মাঝখানে যদি শ্রমিকরা প্রবেশ করে তবে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির সম্ভাবনা প্রবল হারে বাড়তে পারে। আর এই দুই পরিস্থিতি একই সঙ্গে মোকাবেলা করা রাজ্য সরকারের পক্ষে অসম্ভব। তাই রাজ্য সরকারকে এরকম বড় সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে। বন্ধুরা আপনারা এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে কি মনোভাব পোষন করেন? অবশ্যই কমেন্ট করে জানান।

হাই বন্ধুরা, প্রতিদিনের খবর পাওয়ার জন্য bangla.365reporter বুকমার্ক করে রাখুন। আর ফেইসবুক, টুইটার এবং পিন্টারেস্টে আমাদের সঙ্গে কানেক্ট করতে পারেন। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.