জন্মদিনে তৈমুরকে কি উপদেশ দিলেন মা করিনা কাপুর খান ?

আজ ডিসেম্বরের ২০ তারিখ হল কিউট তৈমুর আলী খানের চতুর্থ জন্মদিন। তৈমুরের মা করিনা কাপুর তার ছেলের সবথেকে মিষ্টি ফটো শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়াতে। অন্যদিকে তিনি তার ছেলেকে বিশেষ কিছু উপদেশ দিলেন এই বিশেষ দিনে। (Mom Kareena Kapoor gives precious advise to her son Taimur Ali Khan in his 4th birthday. Taimur Ali Khan Birthday date – 20th December)

প্রকৃতপক্ষে, করিনা কাপুর তার ছোট ছেলের বিভিন্ন মুহূর্তের ফ্রেমবন্দী করেছেন। কোথাও দেখা যাচ্ছে তৈমুর গরুকে খড় খেতে দিতে যাচ্ছে। কোথাও বা সে ছাগল কোলে করে বসে আছে। আবার কোন কোন জায়গায় একটি গাছে উঠে বসে আছে। আরেকটি ফটোতে সাইফ আলি খান করিনা কাপুর এবং তাদের ছেলে তৈমুর আলী পতৌদিকে একসাথে দেখা গেল।

Saif Kareena Kapoor and Taimur Ali Khan in one frame
তৈমুর এর জন্মদিনে তৈমুর, সাইফ এবং করিনা জন্মদিনেএকসাথে (Credit : @kareenakapoorkhan on Instagram)

করিনা লিখলেন,”মাই চাইল্ড,তুমি এবার চারে পা দিয়েছো। আমি খুব খুশি তোমার আগ্রহ, ইচ্ছাশক্তি এবং সংকল্প দেখে। আর সেগুলো হলো তুমি ঘাস তুলে নিয়েছে ও গরুকে খাওয়ানোর জন্য। ঈশ্বর তোমার মঙ্গল করুক।”

https://www.instagram.com/p/CJAaNn3pzNy/

তুমি আরো লিখলেন,”এই কাজগুলো করার সাথে সাথে অবশ্যই তুষারপাত কে উপভোগ করো। ফুল লাগাও, লাফালাফি করো। আর হ্যাঁ, তোমার জন্য রাখা কেক পুরোটাই খেয়ে ফেলো।”

তিনি তার সন্তানের জীবন গঠনের জন্য বিশেষ উপদেশ দিলেন। তিনি বললেন,”তোমার স্বপ্ন পূরণের জন্য ছুটে চলো। আর সব সময় মাথা উঁচু করে বাঁচবে। আর এমন কিছু করো যাতে করে তোমার মুখে হাসি ফোটে। তোমার মায়ের চেয়ে আর কেউ তোমাকে বেশি ভালবাসতে পারবেনা। শুভ জন্মদিন পুত্র… আমার টিম।”

Soha Ali daughter Inaaya Naumi Kemmu and Taimur Ali Khan
সোহা আলীর মেয়ে ইনায়া নাওমি কেম্যুর সাথে তৈমুর আলি খান (Credit : @sakpataudi)

অপরদিকে তৈমুরের পিসি কারিশমা কাপুর এবং সোহা আলি খান তার চতুর্থ জন্মদিনে তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে। সোহা আলি তার মেয়ে ইনায়া নাওমি এবং তৈমুরের একসাথে থাকা একটি ছবি পোস্ট করেছে। আর ক্যাপশানে লিখলেন,”শুভ জন্মদিন টিম টিম। আমার বড় ভাই এবার চারে পা দিল।”

অপরদিকে করিশমা কাপুর কতকগুলো কিউট ফটো তার ভাইপোর সাথে শেয়ার করেছে। আর সেখানে তিনি লিখলেন,”আমার জান তৈমুরের এর জন্য চুমু রইল। শুভ জন্মদিন। আমরা তোমাকে ভীষণ ভালোবাসি।”