করোনায় প্রাক্কালে তৃণমূল ছাত্র নেতা ছত্রধর মাহাতোকে গৃহবন্দি রাখার আবেদন জানালেন NIA

এনআইএ -এর আইনজীবী জানিয়েছেন বিশিষ্ট সিপিএম নেতা প্রবীর মাহাতোর খুনের মামলার শুনানিতে সাড়া দিচ্ছেন না তৃণমূল নেতা ছত্রধর মাহাতো, অপরদিকে তৃণমূল নেতা ছত্রধর মাহাতোর আইনজীবী দাবি করেন যে ছত্রধর এখন করোনা আক্রান্ত তাই শারীরিক অসুস্থতার কারণে শুনানিতে হাজির হতে পারছেন না (Corona attacks Adivasi cum TMC leader Chhatradhar Mahato- claims his lawyer Koushik Sinha)।

এর আগের শুনানিতেও আদালতে হাজির হয়নি ছত্রধর তবে অবশ্য তার আইনজীবী বলছেন ছত্রধর নাকি আদালতে এসেও বাড়ি ফিরে গেছেন শরীর অসুস্থ হয়ে পড়ায়। যদিও এই দাবি মানতে নারাজ এনআইএ। এনআইএ দাবি করেছেন শুধুমাত্র শারীরিক অসুস্থতার কারণে এবং তিনি যে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এই কথাটি সম্পূর্ণ সন্দেহজনক তাই আদালতের কাছে ছত্রধর মাহাতোকে গৃহবন্দি থাকার নির্দেশ দেওয়ার জন্য দাবি করেছেন (Jangalmahal News: NIA doubts about the claims of lawyer of Chhatradhar Mahato and demands house arrest to Chhatradhar Mahato)।

সোমবার কৌশিক সিনহা অর্থাৎ ছত্রধর মাহাতোর আইনজীবী জানিয়েছেন তার মক্কেলের নাকি হঠাৎ করে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে তাই ডাক্তারদের পরামর্শ নিয়ে তিনি নিজস্ব বাড়িতেই আইসোলেশনে রয়েছেন।

এনআইএ, ছত্রধর মাহাতোর বিরুদ্ধে যে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করার জন্য আদালতের কাছে আর্জি করেছিল তা সম্পূর্ণরূপে খারিজ করে আদালত। পরবর্তী শুনানির তারিখ ১২ ই অক্টোবর ঠিক করা হয়, বিচারক নির্দেশ দেন ওই নির্দিষ্ট তারিখের আগেই যেন ছত্রধর মাহাতো করোনা আক্রান্ত সেই বিষয়ে আদালতে সঠিক প্রমাণ জমা দেয়া হয়।

গত শুক্রবার ছিল মামলাটির শুনানি। ছত্রধর মাহাতোর অনুপস্থিতির কারণে তাঁর আইনজীবী আদালতে জানিয়েছিল যে ছত্রধর আদালতে এসেছিল কিন্তু হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ায় তৎক্ষণাৎ তাকে কলকাতার একটি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়, তার বিরুদ্ধে এনআইএ এর আইনজীবী দাবি করেন যে গৃহবন্দী অবস্খাতেই ছত্রধরের লালার পরীক্ষা করার জন্য নমুনা নিয়ে কেন্দ্রীয় পরীক্ষাগারে পাঠানো হোক যাতে জানা যায় যে ছত্রধর সত্যিই করোনা আক্রান্ত কিনা, নাকি শুনানি থেকে বাঁচার জন্য এরকম অভিনয়।