মাত্র ১০০ টাকা কেড়ে নিল তরতাজা একটি প্রাণ !

অনেক সময় আমরা কলকাতার রাস্তায় দুটি বাস কে একে অপরের সঙ্গে রেষারেষি করতে দেখি। একে অপরের সঙ্গে রেষারেষি করার সময় অ্যাক্সিডেন্টট হয়েছে বহুবার।কিন্তু সামান্য ১০০ টাকা নিয়ে বিবাদের জেরে বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটলো কাশীপুরের চিড়িয়ামোড়ে । সামান্য কটা টাকা নিয়ে মনোমালিন্য হয় এক বাস চালক কে পিষে দিল অন্য একটি বাসের চালক। ইতিমধ্যেই বাসটিকে আটক করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত চালককে নিয়ে যাওয়া হয়েছে থানায়। (Only 100 rupees takes a fresh life- bus crash in Kashipore, Chiriamore)

কিন্তু কি হয়েছিল সেদিন? পুলিশ সূত্রে খবর পাওয়া গেছে, হাওড়া ব্যারাকপুর রুটের বাস (এস ১২) পূর্ণেন্দু নন্দী চালাচ্ছিলেন। চিড়িয়া মোড়ের কাছে উল্টো দিক থেকে আসা ৭৮ নম্বর রুটের একটি বাসের সঙ্গে তার ধাক্কা লেগে যায়। এই ধাক্কা লাগার ফলে পূর্ণেন্দু নন্দীর বাসের লুকিং গ্লাস ভেঙ্গে যায়। সঙ্গে সঙ্গে বাস থেকে নেমে তিনি অন্য বাসের চালক কে ১০০ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে বলেন। সেই নিয়ে আস্তে আস্তে শুরু হয় বচসা। (Purnendu Nandi is driving a S12 bus from Howrah to Barrackpore route. Accidently, his bus collides with a bus from 78 route. So quarrelling starts)

symbolic photo of bus crash
বাস ক্রাশের প্রতীকী ফটো

এরপরই হঠাৎ করে ৭৮ নম্বর রুটের বাসের চালক পূর্ণেন্দু নন্দীর ওপর বাস চালিয়ে দেন। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় বাস চালক এর। ঘটনা তদন্ত ইতিমধ্যেই শুরু করে দিয়েছে পুলিশ। আশেপাশে সমস্ত দোকানে সিসিটিভি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিযুক্ত চালকসহ বাসটিকে আটক করা হয়েছে। (The bus driver from 78 route crashes Purnendu Nandi and the bus driver dies.)

এদিকে ৩৯ বছরের পূর্ণেন্দু নন্দী তার পরিবারের একমাত্র রোজগেরে সদস্য ছিলেন বলে জানা গেছে। তার বাড়িতে রয়েছে বৃদ্ধা মা, স্ত্রী এবং ছয় বছরের একটি মেয়ে। তার বাড়ি হুগলি জেলার রিষরা । স্বাভাবিকভাবেই কান্নায় ভেঙে পড়েছেন পরিজনেরা। কিন্তু একটা কথা সকলেরই মনে প্রশ্ন, শুধু মাত্র ১০০ টাকার জন্য প্রাণ দিতে হলো একজন বাসচালককে? আমাদের মধ্যে থেকে মানবিকতা কি একেবারেই চলে গেছে? আজ ওই ১০০ টাকা নিয়ে যদি বিবাদে না ঝরাত ওই দুইজন ব্যক্তি, তাহলে হয়তো অচিরেই প্রাণ চলে যেত না একজন বাস চালকের।(Purnendu Nandi, 39 from Rishra, Howrah)