বিমানে ঘুরে ঘুরে ধনীদের মানিব্যাগ চোর ধরা পরলো পুলিশের হাতে

মুনমুন হোসেন নামে এক মহিলা যারা ডাকনাম অর্চনা বড়ুয়া, বাসস্থান তার কলকাতায়। কলকাতায় বাসস্থান হলেও তিনি বেশিরভাগ থাকতেন ব্যাঙ্গালোরে। ব্যাঙ্গালোরে তিনি কাজ করতেন একটি অরগেসটা বারে। কিন্তু পরে তিনি নানা জায়গায় ঘুরে ঘুরে এই চুরিটাকেই পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন। (Police catches airport moneybag thief)

কলকাতাসহ হায়দ্রাবাদ ব্যাঙ্গালোরে প্রভৃতি জায়গায় বিমানে করে ঘুরে ঘুরে এই চুরি করতেন। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে যে, প্রত্যেকদিনই বিমানে করে তিনি এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যেতেন এবং বড় বড় বাজার এবং মল গুলিতে ঘুরতেন এবং তার পরে সেখানে কোন ধনী কাউকে খুঁজে টার্গেট করতেন এবং সুযোগ বুঝেই তার ব্যাগ নিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যেতেন।

মুনমুনের বিয়ে হয়েছিল, কিন্তু তিনি এখন ডিভোর্সি। পুলিশ সূত্রে খবর পাওয়া যায় যে ২০০৯ থেকে তিনি এই পেশার সঙ্গে যুক্ত। তিনি আগে বারে সিঙ্গারের কাজ করতেন কিন্তু সেই কাজ চলে যাওয়ার পরে তিনি এই চুরি করার কাজটিকেই পেশা হিসেবে বেছে নেন।

বহুদিন আগে থেকেই পুলিশ এই মহিলার তল্লাশি করছিল। লোয়ার প্যারেল এর হায়েস্ট রেট ফিনিক্স মলের এক মহিলা তার ব্যাগ হারিয়ে ফেলে এবং তার ব্যাগে ছিলো ফোন সোনার গয়না সহ অনেক টাকা। পুলিশ রা যখন সিসিটিভির ফুটেজ চেক করে তখন দেখে মুনমুন সেই ব্যাগটি তুলে নিয়ে চলে যাচ্ছেন।

এরপরে যখন মুনমুনের তল্লাশিতে ব্যাঙ্গালোরের পুলিশ নামে, তখন দেখে ২০১৮ সালে এরকম একটি চুরি সঙ্গেও সে যুক্ত। এরপর পুলিশ তদন্তে নামে এবং ব্যাঙ্গালোরের থেকে ওই মহিলাকে গেপ্তার করে। মুনমুন জানিয়েছে যে, এই একই ধরনের পদ্ধতিতে তিনি বেশ কয়েক’টি জায়গায় চুরি করেছেন। এই অপরাধীর কাছ থেকে অনেক টাকা, গয়না, ফোন এবং কাগজপত্র পাওয়া গেছে।

Police catches airport moneybag thief
বিমানে ঘুরে ঘুরে ধনীদের মানিব্যাগ চোর ধরা পরলো পুলিশের হাতে