সত্যিই কি গুনগুনের প্রতি ভালোবাসায় পূর্ণ হয়ে উঠছে সৌজন্যের মন ?

স্টার জলসা নেটওয়ার্কের খড়কুটো সিরিয়ালে অদৃষ্টের লিখনে সৌজন্য মুখার্জি এবং স্রোতস্বিনী মুখার্জি ওরফে গুনগুনের মধ্যে বিয়ে হয়ে যায়। মূলত তাদের দুজনের মধ্যে ঝগড়াঝাঁটি লেগেই থাকে। তবে এখনো পর্যন্ত দেখানো শেষ পর্বে দেখা গেল সৌজন্যের মন গুনগুনের প্রতি একটু নরম হয়েছে। চলুন জেনে নিই বিস্তারিত। (Star Jalsha Bengali Serial News : Shoujanya Mukherjee aka Koushik Roy shows some love to his wife Gungun aka Trina Saha)

ওই পর্বে দেখা যায় যে একজন গুনগুনকে ভৎসনা করে। আর এর ফলে গুনগুন কান্নাকাটি শুরু করে দেয়। আর এই ব্যাপারটা তার স্বামী অর্থাৎ সৌজন্যের বুকে আঘাত করে। সে ব্যাপারটা কিছুতেই মেনে নিতে পারে না।

সৌজন্যের কথা অনুসারে, সে তার বউ গুনগুনকে কটু কথা বলতেই পারে। তবে অন্য কেউ তার সামনেই তার বউকে খারাপ বলবে সে কিছুতেই মেনে নেবে না বলে জানায়। আর এই কথা সে তার বউয়ের সামনে বলে। আর তখনও তার বউ গুনগুন মুখ গোমরা করে ছিল।

স্বাভাবিকভাবেই গুনগুন তার স্বামীর কথা শুনে ভীষণ অবাক হয়ে যায়। ফলে একটা কথা দর্শকদের কাছে পরিষ্কার যে, বরফ আস্তে আস্তে গলতে শুরু করেছে। আর ধীরে ধীরে সৌজন্য তার বউ গুনগুনের মায়ার ফাঁদে পড়ে যাচ্ছে এ কথা বলাই বাহুল্য।

Shoujanya Mukherjee shows some love to his wife Gungun
সত্যিই কি গুনগুনের প্রতি ভালোবাসায় পূর্ণ হয়ে উঠছে সৌজন্যের মন ? (Credit : Star Jalsha)

উপরন্তু সৌজন্য তার বউ গুনগুনকে বলে,”চোখ মোছো।” তবে এই কথা শোনার পর গুনগুনের আবার একটু দাম বেড়ে যায়। সে চোখ মুছতে অস্বীকার করে। আরো জানায় যে, সে চোখ মুছুক আর না মুছুক তাতে কার কি আসে যায়।

আর স্বামী-স্ত্রীর এই মান-অভিমানের পালা দরজার আড়ালে থেকে দাঁড়িয়ে দেখছিল সম্বন্ধীরা। সৌজন্যর কাকা কমলেশ্বর বাবু তাদের কথোপকথন শুনে বলেন,”জমে একেবারে ক্ষীর!” অন্য একজন বলল,”আহা কি দেখলাম!”

পরবর্তীকালে অবশ্য সৌজন্য জানায় যে, তার বউকে ৩৬৫ দিন তাদের বাড়িতে থাকতে হবে। আর তাদের বাড়ির প্রত্যেকের কথা এবং তার কথা শুনতে হবে। আর তার বউকে অকারণে কাজে যাবে না বলে জানায়।

আর এইভাবে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মান-অভিমান চলতে থাকে। সৌজন্য মুখার্জির চরিত্রে অভিনয় করছেন অভিনেতা কৌশিক রায় এবং স্রোতস্বিনী মুখার্জি ওরফে গুনগুন এর চরিত্রে অভিনয় করছেন অভিনেত্রী তৃণা সাহা। পরবর্তী পর্বে বুঝতে পারা যাবে ঘটনা কোন দিকে মোড় নিচ্ছে।