সুশান্ত সিং নিজেই মৃত্যুর কারণ জানালেন! ভাইরাল ভিডিও

হঠাৎ করে কোনো কারণ ছাড়াই বিখ্যাত বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যার ঘটনা তার অনুরাগীদের প্রাণে অনেক জিজ্ঞাসা সৃষ্টি করেছে। এবার সেই সমস্ত জিজ্ঞাসার যথাযথ উত্তর দিলেন সুশান্ত সিং নিজেই। হাফ প্যারানরমাল নামক একটি ইউটিউব চ্যানেলের নামক স্টিভ একজন প্যারানরমাল সাইকোলজিস্টের সঙ্গে প্ল্যানচেটে তিনি সুশান্ত সিং এর আত্মার সঙ্গে কথা বলেন। আর সেই আত্মা স্টিভকে জানিয়েছেন যে পরিবর্তন ঘটিত কারণে তার মৃত্যু ঘটেছে। আর এই ভিডিও নিয়ে অলরেডি সোশ্যাল মিডিয়াতে তুমুল হইচই শুরু হয়ে গেছে। অলরেডি এই ভিডিওটি 13 লক্ষেরও বেশী লোক দেখে ফেলেছেন। আপনারাও দেখে নিন সেই ভিডিওটি নিচের লিঙ্ক থেকে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য

তবে 365 রিপোর্টার বাংলা এই ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করেনি। এটা আমাদের কোনো ব্যক্তিগত মতামত নয় আর আমাদের এই ওয়েবসাইট এই সমস্ত অবৈজ্ঞানিক, কুসংস্কারে বিশ্বাসী নই। আমরা শুধুমাত্র এই ভিডিওটি পর্যালোচনা করে একটি পোস্ট লিখেছি।

ভিডিওতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে গত জুলাই মাসের 13 তারিখে ওই প্যারানরমাল সাইকোলজিস্ট সুশান্তের সঙ্গে সর্বপ্রথম কথা বলতে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। আর এই কাজে সফলতা পাওয়ার জন্য তিনি বিশিষ্ট কয়েক প্রকারের যন্ত্রপাতি ব্যবহার করেন। তিনি সুশান্তকে জিজ্ঞাসা করেন, “আমাদের কি তুমি মনে করে বলতে পারো তুমি কিভাবে মারা গিয়েছো প্রকৃতপক্ষে?”

তার যন্ত্র থেকে আওয়াজ আসে, “এই জিনিসটা ওরা মেডিকেল টেস্টের ওপরেই নির্ভর করছে।” সাইকোলজিস্ট স্টিভ দাবি করেছেন এই আওয়াজ প্রকৃতপক্ষে সুশান্তের।

এই ঘটনার পরের দিন আবার একই পদ্ধতি ওই সাইকোলজিস্ট আরম্ভ করেন। এই দিন তার জিজ্ঞাসা ছিল, “তোমার ফ্যানরা মনে করছে তুমি স্বাভাবিকভাবে মৃত্যুবরণ করো নি। তবে তুমি নিজেকে কেন মেরে ফেললে?”

এখন সেই যন্ত্র থেকে উত্তর পাওয়া যায়,”দ্যা চেইঞ্জ।” অর্থাৎ কোনো প্রকার পরিবর্তন ঘটেছে সে কারণে প্রশান্তের জীবন চলে গেছে বলে মত প্রকাশ করছেন ওই সাইকোলজিস্ট। যদিও যন্ত্র থেকে প্রাপ্ত আওয়াজ পুরোপুরি ব্যাখ্যা দেয়নি কি পরিবর্তন আর কিবা সেই জিনিস।

পরবর্তীকালে সাইকোলজিস্ট আবারও জিজ্ঞাসা করেন তিনি সুশান্তকে তার ডান দিকে দেখতে পাচ্ছেন এবং বাঁ দিকে একজন বয়স্ক লোক বসে রয়েছেন। “তো ওই বয়স্ক লোকটি কে হতে পারে?”

তখন যন্ত্রটি উত্তর দেয়, “উনি প্রকৃতপক্ষে আমার পিতা।” এরকমই আরো কয়েকটি বিক্ষিপ্ত ভাসা-ভাসা উত্তর পাওয়া যায় ওই যন্ত্র থেকে। যদিও মধ্যে সুশান্ত প্রেমিরা এই ভিডিওটি বিভিন্ন জায়গায় শেয়ার করতে শুরু করে দিয়েছেন।

এবার ওই সাইকোলজিস্ট দাবি করেছেন তিনি যা করেছেন প্রকৃতপক্ষে বাস্তব ঘটনা। এরমধ্যে ভুলভাল কোন কিছু নেই। এই ভিডিওটি ইতিমধ্যে সুশান্ত প্রেমীদের মধ্যে তুমুল পরিমাণ হৈচৈ ফেলে দিয়েছে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য

365 রিপোর্টার বাংলা এই ভিডিওটির সত্যতা সম্পর্কে সন্দিহান। আর এটি এই ওয়েবসাইটের মালিকের কোন প্রকার ব্যক্তিগত মতামত নয়। আমরা এইসব অবিজ্ঞানসম্মত প্রক্রিয়ায় বিশ্বাসী নই।

হাই বন্ধুরা, প্রতিদিনের গুরুত্বপূ্র্ণ খবর পাওয়ার জন্য bangla.365reporter বুকমার্ক করে রাখুন। আর ফেইসবুক, টুইটার এবং পিন্টারেস্টে আমাদের সঙ্গে কানেক্ট করতে পারেন। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *