বাংলার অবস্থা আরও শোচনীয়। সিএমআইই রিপোর্ট বলছে বেকারত্ব বেড়ে চলেছে ক্রমশ

করোনা ভাইরাস এক তান্ডব চালাচ্ছে পুরো পৃথিবী জুড়ে। লকডাউন এর ফলে সাধারণ মানুষের আর্থিক অবস্থা এবারে বিপর্যস্ত। ব্যবসা থেকে শুরু করে সব কিছুতে আর্থিক সংকট দেখা দেয়ার ফলে বেকারত্বের সংখ্যা ক্রমশ বেড়ে গেছে। (The condition of Bengal is more deplorable. The CMIE report says unemployment is on the rise)

দিনের পর দিন যেন বেকারত্বের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। সি এমআইইয়ের রিপোর্ট অনুযায়ী দেখা গেছে যে, গ্রাম অঞ্চলের থেকে শহরাঞ্চলে বেকারত্বের সংখ্যা অনেক বেশি। (Paschimbanga bekarotto bere choleche – CMIE report)

পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেখা যায় যে ভারতে প্রায় বেকারত্বের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ শতাংশ এবং সবথেকে বেশি বেকারত্বের বেড়েছে হরিয়ানায়, এবং তারপর রয়েছে রাজস্থানে।

লকডাউন ,করোনাভাইরাস সবকিছু নিয়ে এই সময়ে বাংলার অবস্থা একেবারে বিপর্যস্ত । দিনে দিনে বাংলায় বেকারত্বের সংখ্যা বেড়ে চলেছে।

সিএমআইই রিপোর্ট দিয়েছিলেন যে মার্চ মাসে বেকারত্বের হার প্রায় ছিল ৮.৪ শতাংশ কিন্তু, করোনা ভাইরাসের প্রভাবে এপ্রিলের দিকে সেই বেকারত্বের হার পৌঁছে যায় ২৩.৪ শতাংশে, মার্চ মাস থেকে এপ্রিল মাসের মধ্যে বেকারত্বের সংখ্যা প্রচুর পরিমাণে বেড়ে গেছে।

তবে এইভাবে কয়দিনের মধ্যে যদি বেকারত্বের সংখ্যা এত পরিমাণে বাড়তে থাকে তবে বোঝা যায় যে, মে থেকে আগস্ট মাস পর্যন্ত বেকারত্বের সংখ্যা প্রায় ৬ কোটি ছাড়িয়ে।

বেকারত্বের হার নিয়ে রাজ্য থেকে কেন্দ্র সমস্ত জায়গাতেই রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে একটা রেষারেষির লেগেই রয়েছে। প্রত্যেক রাজনৈতিক দল থেকেই বেকারদের জন্য প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় কাজ দেওয়ার, কিন্তু পরে তার কোনো আর খবরই থাকে না।

তবে দিনের-পর-দিন যদি এভাবে বেকারত্বের সংখ্যা ক্রমশ বেড়ে যায় তবে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের অবস্থা কতটা মারাত্মক হতে পারে সে ব্যাপারে ভাবনাটা সত্যি ভয়ংকর।

The condition of Bengal is more deplorable. The CMIE report says unemployment is on the rise
বাংলার অবস্থা আরও শোচনীয়। সিএমআইই রিপোর্ট বলছে বেকারত্ব বেড়ে চলেছে ক্রমশ (Credit : Facebook)