খোদ পুলিশ সন্তানের হাতে অত্যাচারিত হলেন বৃদ্ধ বাবা-মা

Birbhum : ছেলে কলকাতা পুলিশে কাজ করে, একজন পুলিশকর্মী হয়েও নিজের বাবা মার উপর অত্যাচার চালাচ্ছে এমনটাই অভিযোগ উঠল রাজেশ গুপ্তা নামক এক পুলিশ কর্মীর বিরুদ্ধে। এই পুলিশকর্মী দীর্ঘদিন ধরে নিজের বাবা মার উপর অত্যাচার চালাচ্ছে বলে জানা গেছে এমনকি বাদ পড়েনি দাদাও। গুরুতর জখম হয় কলকাতা মেডিকেল কলেজের চিকিৎসাধীন আছে দাদা। (The old parents were tortured by the police son named Rajesh Gupta in Mollarpur, Birbhum)

সম্প্রতি বীরভূমের মল্লারপুর -এ ঘটনাটি ঘটেছে। বাড়ির লোকেরা জানিয়েছেন এই পুলিশকর্মী অর্থাৎ রাজেশ গুপ্তা কলকাতা পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চে কাজ করেন। তিনি কলকাতা পুলিশের এসটিএফের এএসআই পদে আছেন। জানা গেছে দীর্ঘ পাঁচ মাস ধরে এই পুলিশকর্মী ডিউটি থেকে বাড়ি ফিরে সম্পত্তির বিষয় নিয়ে তার বৃদ্ধ বাবা মার উপর নির্যাতন চালাতেন। অভিযুক্তর বাবার বয়স প্রায় ৮০ এবং মায়ের বয়সও ৭০ পেরিয়ে গেছে। দীর্ঘ ৫ মাস ধরে এই শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন অবশেষে রবিবার চরমে পৌঁছায়।

অভিযুক্তের বড় ভাইয়ের নাম রবি গুপ্তা। তিনি পেশায় ব্যবসাদার। জানা গেছে রামপুরহাটে তিনি ব্যবসা করেন। রবি জানিয়েছেন রবিবার তার কাছে বাড়ি থেকে কল আসে এবং সে জানতে পারে তার ভাই তার বাবা মাকে মারধর করছে। তৎক্ষণাৎ সে বেরিয়ে মল্লারপুর এর বাড়িতে পৌঁছায়। রবি জানিয়েছেন সে বাড়িতে পৌঁছানোর সাথে সাথেই ভাই ধারালো অস্ত্র নিয়ে তার উপরেও চড়াও হয়, তার ফলে অস্ত্রের প্রহারে তার চোখের উপরের চামড়াটি কেটে যায় এবং রক্ত পড়তে থাকে। এমনকি এখানেই অভিযুক্ত থেমে যায়নি, দাদাকে বুকে পিঠে লোহার রড দিয়ে প্রহার করতে থাকে। পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা এলে তাদের ওপরেও আক্রমন করেন বলে জানা গেছে। (Robi Gupta, a businessman from Rampurhat)

অবশেষে প্রতিবেশীরা এসে তাদেরকে বাঁচায় বলে জানা গেছে। মল্লারপুর থানায় অভিযোগ করা হয় রাজেশ গুপ্তার বিরুদ্ধে। এমনকি জানা কাছে এর কিছুদিন আগেও অভিযুক্তর বাবা মল্লারপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছিলেন লিখিত ভাবে। যদিও এখন অব্দি পুলিশ-প্রশাসন তেমন কিছু পদক্ষেপ নেয়নি অভিযুক্তের বিরুদ্ধে।

ইতিমধ্যেই আরও জানা গেছে যে অভিযুক্ত বাড়ির লোককে শাসিয়েছেন এই বলে যে, সে যেহেতু পুলিশে কর্মরত তাই পুলিশ তাকে কিছু করতে পারবে না। অবশ্য সংবাদমাধ্যমের কাছে কোন রকম ভাবে মুখ খোলেনি রাজেশ গুপ্তা। পুলিশ জানিয়েছেন তিনি নাকি গা ঢাকা দিয়েছেন।

The old parents were tortured by the police son
খোদ পুলিশ সন্তানের হাতে অত্যাচারিত হলেন বৃদ্ধ বাবা-মা (প্রতীকী ফটো)