জো বাইডেনের আমেরিকা জয়ের গোপন রহস্য ফাঁস

এবার অন্যান্য প্রত্যেকবারের থেকে সম্পূর্ণ নতুনভাবে প্রচারের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচন হয়ে গেল। আর এই নির্বাচনে জো বাইডেনের বিপক্ষে যিনি দাঁড়িয়ে ছিলেন তিনি সব সময় উল্টো পথেই হেটেছেন। আর স্বাভাবিক ভাবেই তাকে হারানো অত্যন্ত শক্ত কাজ ছিল জো বাইডেনের পক্ষে। দীর্ঘ 50 বছর যাবৎ জনপ্রতিনিধি হিসেবে কাজ করার পর এবার তৃতীয় বারের বার প্রেসিডেন্ট হতে সক্ষম হলেন জো বাইডেন। চলুন জেনে নেই জো বাইডেনের নির্বাচন জয়ের গুরুত্বপূর্ণ কারণ সমূহ। (America Election 2020 : The secret of Joe Biden’s victory over America against Donald Trump has been revealed)

১. করোনা মহামারী
শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত করোনা মহামারী শুধুমাত্র যুক্তরাষ্ট্রেই দু লাখ 30 হাজার মানুষের প্রাণ শেষ করে দিয়েছে। আর এই মহামারীর পরিস্থিতিতে ট্রাম্প যেভাবে কাজ করেছেন তা আমেরিকার জনসাধারণের বিপক্ষে গিয়েছিল। এমনকি ট্রাম্প একবার বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন,”এখন কোভিড ফেক নিউজে সবথেকে বেশি আলোচিত হচ্ছে।” অপরপক্ষে, এই মহামারীতে জো বাইডেন যে সমস্ত কার্যক্রম গ্রহণ করেছিলেন তার ফলে জনসাধারণ তার প্রতি এমনিতেই সন্তুষ্ট ছিল।

২. অত্যন্ত সুচতুরভাবে গণিতের নিয়মে এগোনো
এর আগে অনেকবার জো বাইডেন ভুল মন্তব্য করেছিলেন। অপরদিকে তিনি মাঝেমাঝে উল্টোপাল্টা কাজ করে ফেলেন যার ফলে জনসাধারণ ক্ষিপ্ত হয়ে গিয়েছিল। 1987 সালের ইলেকশনে তার পরাজয়ের কারণ হিসেবে এগুলোকে ধরা হয়েছিল। অপরদিকে 2007 সালে তিনি যখন প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হয়ে দাঁড়ান তখন লোকজনের কাছে তার জেতার কোনরূপ সম্ভাবনাই ছিল না। তবে এবার ২০২০ সালে অর্থাৎ তৃতীয়বার যখন পুনরায় নির্বাচন করতে দাঁড়ান তখন তিনি অত্যন্ত মেপে মেপে তার বক্তব্য রেখেছেন।
অপরপক্ষে, জো বাইডেনের প্রতিপক্ষ ডোনাল্ড ট্রাম্প মাঝেমধ্যেই উল্টোপাল্টা মন্তব্য করতেন। যার ফলে অনেকের হাসির পাত্র হয়ে উঠেছিলেন তিনি।

৩. ট্রাম্প থেকে মুক্তি
ইলেকশনের ঠিক সাত দিন পূর্বে জো বাইডেন তাদের শেষ টেলিভিশন অ্যাডভার্টাইজমেন্ট করে। সেখানে অত্যন্ত সুকৌশলে জো বাইডেন জনসাধারণকে বুঝিয়ে দিতে সক্ষম হয়েছিলেন যে, তিনি ট্রাম্প নন।
অপরদিকে, কয়েক বছর ধরে ট্রাম্পের আচরণে জনসাধারণ রীতিমতো ক্ষুব্ধ হয়ে গিয়েছিল। তাদের মতে, ট্রাম্পের সময়কালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র অত্যন্ত বিশৃংখল হয়েছিল। তাই তারা একজন ধীর মস্তিস্কে নেতা চাচ্ছিলেন। আর সেই ইমোশনকে কাজে লাগিয়েছেন জো বাইডেন।

৪. সাধারণের পাশে থাকার মনোভাব
যখন প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন এর সময় তখন জো বাইডেনের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে ছিলেন বার্নি স্যান্ডার্স এবং এলিজাবেথ ওয়ারেন। আর তার প্রতিদ্বন্দ্বীদের ক্যাম্পেইনে প্রচুর লোক দেখতে আসতো। তবে এই দুইজনের প্রতিযোগিতার মাঝখানে তিনি সম্পূর্ণ অন্য নীতি গ্রহণ করেছিলেন। তিনি সরকারি স্বাস্থ্য সেবা ব্যবস্থা, একদম বিনামূল্যে কলেজে ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশুনার ব্যবস্থা করা এবং বিত্তবান ব্যক্তিদের অতিরিক্ত কর দেওয়ার নীতির দিকে জোর দেন। আর এর ফলে অসন্তুষ্ট এবং মধ্যপন্থী ব্যক্তিরা জো বাইডেন কে বিশ্বাস করতে শুরু করে।

৫. অর্থের সুষ্ঠু ব্যবহার
প্রথমদিকে জো বাইডেনের প্রচার করার মতো টাকা ছিল না বললেই চলে। অপরদিকে সেই মুহূর্তে ট্রাম্প প্রচুর অর্থ দিয়ে প্রচার চালাচ্ছিলেন। তবে শেষ মুহূর্তে জো বাইডেনের ক্যাম্পে প্রচুর টাকা জমা পড়ে। আর করোনার কারণে বেশিরভাগ মানুষ ঘর বন্দী হয়ে থাক ছিলেন। আর সেই মুহূর্তে টিভিতে জো বাইডেন বিপুলভাবে প্রচার শুরু করে দেয়। তবে অর্থাৎ কিন্তু সব নয়। বলতো শেষ মুহূর্তে করোনা ইস্যু কাজে লাগিয়ে জনগণকে আকর্ষণ করতে সক্ষম হন জো বাইডেন। অপরদিকে তিনি জলবায়ু পরিবর্তন রোধের ব্যাপারটার কথা বলে তরুণ প্রজন্মকে বিপুলভাবে আকৃষ্ট করে ফেলেন।

The secret of Joe Biden's victory over America has been revealed
জো বাইডেনের আমেরিকা জয়ের গোপন রহস্য ফাঁস (Credit : Instagram)