শুনলে অবাক হয়ে যাবেন : লকডাউনে এই জিনিসটি বেশি বিক্রি হয়েছে ভারতে

আমরা সকলেই জানি যে, গত বছর আমাদের থাকতে হয়েছিল গৃহবন্দী। তখন দীর্ঘ গৃহবন্দি হয়ে থাকার ফলে বহু মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছিলেন। একে অপরকে সময় না দিতে পারা স্বামী স্ত্রী একসঙ্গে থাকতে শুরু করেছিলেন। আরো বেশি বুঝতে শুরু করেছিলেন একে অপরকে। গতবছর সবথেকে বেশি গর্ভবতী হওয়ার খবর এসেছিল ভারত থেকে। অর্থাৎ বুঝতেই পারছি যে, কিভাবে নিজেদের সময় ইঞ্জয় করেছিলেন দম্পতিরা। (You will be surprised to see – this item is hugely sold in lockdown in India)

তবে আরেকটি জিনিস বিক্রি ওই সময় ভীষণ ভাবে বেড়ে গিয়েছিল। তাহলো কনডম। আর শুনলে অবাক হবেন যে, এই বিক্রি বেড়েছিল রাতের থেকে দিনে বেশি।Concierge services app Dunzo-র তথ্য অনুযায়ী, দিনের বেলা বেশি কনডম কিনেছেন মানুষ। (Condom – Gorbho Nirodhok Osudh)

সমীক্ষা অনুযায়ী, রাতের থেকে প্রায় তিনগুণ বেশি দিনের বেলা কনডম কিনে ছিলেন সাধারণ মানুষ। হায়দ্রাবাদে ছয়গুণ বিক্রি বেড়েছে কনডমের। চেন্নাই এবং জয়পুরে বেড়েছে ৫ ও ৪ গুন বেশি।

কনডম ছাড়াও আরেকটি জিনিস কেনা বেচা লকডাউনে অতিরিক্ত বেড়ে গিয়েছিল, তাহলো গর্ভনিরোধক ওষুধ। সবথেকে বেশি অর্ডার দেওয়া হয়েছে পুনে, গুরুগ্রাম, বেঙ্গালুরু হায়দ্রাবাদ এবং দিল্লিতে।জয়পুরে সবথেকে বেশি বিক্রি হয়েছে প্রেগনেন্সি টেস্ট কিট।

সমীক্ষায় আরো জানা গেছে যে, চলতি বছর বিক্রি বেড়েছে রোলিং পেপারের। এই ব্যাপারটি বিশেষত ব্যবহার করা হয় সিগারেটের ক্ষেত্রে। খাবার বিক্রির পরিমাণ অনেক বেশি বেড়ে গেছে। ব্যাঙ্গালোরের সবথেকে বেশি বিক্রি হয়েছে চিকেন বিরিয়ানি। মুম্বাইতে বিক্রি হয়েছে ডাল খিচুড়ি। চেন্নাইতে ইডলি এবং গুরু গ্রামে আলু টিক্কি প্রচুর পরিমাণে বিক্রি হয়েছে।

এছাড়াও বিক্রি হয়েছে কফি। কফি বেশি খেয়েছেন মানুষ খেয়েছেন দিল্লি চেন্নাই এবং জয়পুরের মানুষ। সফট ড্রিঙ্ক বিক্রি হয়েছে বেশি দিল্লিতে। সব মিলিয়ে এই সমস্ত জিনিসের প্রচুর পরিমাণে চাহিদা বেড়ে গেছে গত বছরে।

This item is hugely sold in lockdown in India
শুনলে অবাক হয়ে যাবেন : লকডাউনে এই জিনিসটি বেশি বিক্রি হয়েছে ভারতে