বিজেপিকে কিছুতেই বাংলা ভাগ করতে দেবো না, জানালেন তৃণমূল সাংসদ গৌতম দেব

ইতিমধ্যেই গোর্খাল্যান্ড নিয়ে হুঁশিয়ার করলেন তৃণমূল। জানালেন বাংলাকে ভাগ করার কোনরূপ ষড়যন্ত্রকে সফল হতে দেবে না তৃণমূল এই রূপ মন্তব্য করলেন তৃণমূল নেতা গৌতম দেব। জানা গেছে আগামী ৭ই অক্টোবর একটি ত্রিপাক্ষিক বৈঠকে ডাক দিয়েছেন কেন্দ্র। বৈঠকের বিষয়বস্তু হলো গোর্খাল্যান্ড ইস্যু। এরপরই তৃণমূল নেতার গৌতম দেব সংবাদ মাধ্যমের মাধ্যমে জানিয়েছেন এটি হলো বিজেপি দের বাংলা ভাগ করার ষড়যন্ত্র এবং এই ষড়যন্ত্র কিছুতেই সফল হতে দেবেন না তিনি (TMC minister Goutam Deb slams BJP in context of partition of Bengal)।

অনীত থাপা অর্থাৎ জিটিএ এর চেয়ারম্যান জানিয়েছেন কেন্দ্র তখনই তাদেরকে মনে করেন যখন দার্জিলিং এ কোন নির্বাচন আসার কথা হয় (GTA chairman ANit Thapa)। এবারের বৈঠকটিতেও কেন্দ্র তেমন কিছু সুবিধা করতে পারবে না বলে মনে করেছেন তিনি।

North Bengal development minister Goutam Deb with school kids
স্কুলের বাচ্চাদের সঙ্গে তৃণমূল মন্ত্রী গৌতম দেব

জানা গেছে কেন্দ্র ইতিমধ্যেই উল্লেখযোগ্য ৪ জনকে চিঠি পাঠিয়েছেন। সেই তালিকায় আছে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার সভাপতি, জিটিএ-র প্রধান সচিব, রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব এবং দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক। গোর্খাল্যান্ড ইস্যু নিয়ে আয়োজিত এই ত্রিপাখিক বৈঠকটি নয়া দিল্লিতে আগামী ৭ই অক্টোবর বুধবার সকাল ১১ টায় অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে। ঐদিন অনুষ্ঠিত বৈঠকটিতে লক্ষণীয় বিষয় হল জি.এন.এল.এফ এবং বিমল গুরুংপন্থী গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা বৈঠকের আসবেন কিনা। কারণ আগেরবার যে ত্রিপাক্ষিক বৈঠকটি কেন্দ্র আয়োজন করেছিল সেটি পরবর্তীকালে বাতিল হয়ে যায়।

বিমল গুরুং অর্থাৎ গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা এর আগেও বিজেপির সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেছিল এমনকি গোর্খাল্যান্ড কে নিয়ে বৈঠকের দাবিও রেখেছিলেন অনেক আগে। তিনি জানিয়েছিলেন বিজেপি যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল রাজনৈতিক সমাধানের সেটি বাস্তবায়িত করা বিজেপির কর্তব্য।

সেই ৮০ -এর দশক থেকে শুরু হয়েছে গোর্খাল্যান্ড আন্দোলন সুভাষ ঘিসিংয়ের হাত ধরে (Subhash Ghising starts Gorkhaland Movement)। ভয়ঙ্কর আন্দোলন চলাকালীন দু’বছরের মধ্যে মারা গিয়েছিল কয়েকশো মানুষ। অবশেষে জ্যোতি বসুর উদ্যোগে ভারত সরকার এবং পশ্চিমবঙ্গ সরকার চুক্তি স্বাক্ষর করার মাধ্যমে পাহাড়ের অশান্তিকে থামিয়ে ছিলেন। অবশ্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি এর আগেও একাধিকবার জানিয়েছিলেন গোর্খাল্যান্ড ইস্যু নিয়ে যদি কেন্দ্র বাংলাকে ভাগ করার কোনরূপ ষড়যন্ত্র করেন তা কোনভাবেই বাস্তবায়িত হতে দেবেন না তিনি।