কেন মাদক মামলায় যুক্ত বলিউডের নামকরা অভিনেত্রীগণ ?

আপনারা প্রত্যেকে জানেন যে অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত আমাদেরকে ছেড়ে অকালে চলে গিয়েছেন। অভিনেতার মারা যাবার পরবর্তীকালে ইনভেস্টিগেশন আরো ভালোভাবে করার জন্য এনসিবি দুটি এফআইআর দায়ের করে। প্রথমটি তারা করেছিল সুশান্তের এক্স গার্লফ্রেন্ড রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে (RHea Chakraborty, Ex Girlfriend of Sushant Singh Rajput)। এক্ষেত্রে রিয়া চক্রবর্তী সুশান্তের টাকাপয়সা গায়েব করেছে বলে ইডি তার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে। এবার চলুন জেনে নেই দ্বিতীয় এফআইআর টি কিসের জন্য (365 Reporter Bangla Bollywood News : why NCB summons popular actresses) ?

সামাজিক গণমাধ্যম এর কথোপকথন থেকে মাদকদ্রব্য সম্পর্কিত বেশ কিছু তথ্য হাতে আসে। আর সেখান থেকেই এনসিবি বলিউডের নামকরা অভিনেত্রীদের নাম খুঁজে পায়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই তাদের বিরুদ্ধে জেরা করার নির্দেশ পাঠানো হয় এনসিবির তরফ থেকে।
মূলত এই মুহূর্তে এনসিবি বলিউডের ড্রাগের সমস্ত শিকড় তুলে ফেলতে প্রস্তুত। তাই তারা এই ব্যাপারে চিরুনি তল্লাশি শুরু করেছে।

ড্রাগের যোগসূত্রের উপর ভিত্তি করেই রিয়া চক্রবর্তী, তার ভাই সৌভিক চক্রবর্তী (Showik CHakraborty)- এইভাবে মোট 19 জনকে এরেস্ট করেছে নারকটিকস কন্ত্রল বিউরো। আর পরবর্তীকালে বলিউডের বড় বড় অভিনেত্রীর নাম জানা যায়। ইতিমধ্যে দীপিকা পাডুকোন, সারা আলি খান এবং শ্রদ্ধা কাপুরের মত নামজাদা অভিনেত্রীদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠিয়েছে এনসিবি (NCB will investigate big bollywood actresses like Deepika Padukone, Sara Ali Khan and Shraddha Kapoor)।

Deepika Padukone sara ali and Rakul Preet Singh in one frame
দীপিকা, সারা এবং রাকুল প্রীত একই ফ্রেমে (ফটো ক্রেডিটঃ গুগোল)

কেন এই অভিনেত্রীদের নামে অভিযোগ করা হলো ?
এখনো পর্যন্ত রিয়া চক্রবর্তী ছাড়া আর কাউকেই অ্যারেস্ট করা হয়নি। তাছাড়া এই সমস্ত অ্যাক্ট্রেসদের কাউকেই বলা হয়নি যে তারা অভিযুক্ত। মূলত রিয়া চক্রবর্তী এবং জয়া সাহার মোবাইলে চ্যাট পাওয়া গিয়েছে। জানা গিয়েছে যে জয়া সাহা কোয়ান্ট ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সিতে (Jaya Saha from Quant Talent Agency) কাজ করেন। আর তাদের দুজনের কথোপকথন থেকেই এই সমস্ত নামকরা অভিনেত্রীদের নাম পাওয়া গিয়েছে। আর পুরো ব্যাপারটা খতিয়ে দেখার জন্য এনসিবি তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ডেকে পাঠিয়েছে।

কেন দীপিকা পাডুকোন এবং তার ম্যানেজার মধুর নাম জড়িয়ে গেল ?
মূলত এনসিভি জয়া সাহার কয়েকটি হোয়াটসঅ্যাপ কথোপকথন খুঁজে পায়। আর সেখান থেকেই তারা দীপিকা পাডুকোন এবং তার ম্যানেজার কারিশমা প্রকাশকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠিয়েছেন। অপরদিকে প্রযোজক এবং ম্যানেজার মধু মন্টেনাকে জয়া সাহার দেওয়া উত্তরের উপর ভিত্তি করে ডাকা হয়েছিল। এখন, জয়াকে অভিযুক্ত বলা হয়েছে। আর সেই কারণেই দীপিকা সমেত অন্যান্য প্রত্যেকের নাম এই মামলাতে নথিভুক্ত করা হয়েছে। একই প্রক্রিয়ায়, অভিনেত্রী রাকুল প্রীত সিং কেও (NCB will investigate Rakul Preet Singh) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছে।

কি কারণে সারা আলি খান এবং শ্রদ্ধা কাপুর কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে ?
এক্ষেত্রে উত্তর হিসেবে দুটি কারন হতে পারে। এনসিবি অফিসাররা জানালেন যে, রিয়া চক্রবর্তী কে 6 থেকে 9 সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জেরা করা হয়েছিল। আর সেই সময়ে ওই অভিনেত্রী এই দুজনের নাম বলেছিলেন। তবে রিয়ার আইনজীবী সতীশবাবু এর আগে উল্লেখ করেছিলেন যে, রিয়া চক্রবর্তী অন্য কারো নাম বলেনি। এখন পর্যন্ত রিয়া এবং তার ভাই সৌভিক- এইভাবে মোট 17 জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর এই এফআইআর মামলায় এই দুই অভিনেত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠিয়েছে এনসিবি।

অভিনেত্রীদের কি ভবিষ্যতে কোনো সমস্যা হতে পারে ?
এনসিবির অফিসাররা জানালেন যে, এখনো পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদ করার পর তারা যে কথোপকথনের সূত্র পেয়েছেন তার ভিত্তি করে তারা পরবর্তী কার্যক্রম চালিয়ে যাবেন। আর এই পরবর্তী কার্যক্রম হিসেবে তারা ওই অভিনেত্রী দের জেরা করবেন এক এক করে। অপরদিকে এই কেসে কার, কিভাবে, কোন বিভাগে অভিযোগপত্র দাখিল করা হবে তা তারা পরবর্তীকালে সিদ্ধান্ত নেবেন। অর্থাৎ এই ব্যাপারে এখনো কোনো কিছু পরিষ্কার নয় বলে জানালেন এনসিবি অফিসারগন।