ঘুমন্ত মা-দাদাকে খুন করে নিজে আত্মঘাতী‌র চেষ্টা চোদ্দো বছরের নাবালিকার

সম্প্রতি লখন‌উয়ের গৌতমপল্লী পুলিশ স্টেশন এলাকায় (Goutam Pally Police Station Area, Lucknow) এক খুনের ঘটনায় স্থানীয় লোকজন স্তম্ভিত। এক ১৪ বছরের নাবালিকা আচমকাই তার মা ও দাদাকে ঘুমের মধ্যে গুলি করে খুন করে এবং তারপর নিজে হাতের শিরা কেটে আত্মঘাতী হওয়ার চেষ্টা করে (14 Years old girl kills her mom and brother and tries to suicide)। শনিবার বিকেলে গৌতম পল্লীর এই ঘটনায় প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানিয়েছে মেয়েটির মানসিক অবস্থা স্বাভাবিক নয় এবং বিছানার পাশে থেকে দুটি দেহ উদ্ধার করা হয়েছে পুলিশের তরফ থেকে।

ওই নাবালিকার বাবা নর্দান রেলওয়ের ট্রাফিক বিভাগের সিনিয়র অফিসার। বর্তমানে তিনি দিল্লিতে কর্মরত। ঘটনাটি ঘটার সময় তিনি দিল্লিতেই ছিলেন। খবর পেয়ে তিনি লখন‌উতে এসে পৌঁছান। ঘটনা পরবর্তী সময়ে পুলিশ নাবালিকাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। পুলিশের তরফে অভিযোগ নাবালিকা তিনটি গুলি চালিয়ে ছিলেন। তার মধ্যে একটি আয়নায় এবং বাকি দুটি মেয়েটির মা ও দাদার গায়ে লাগে। পুলিশ সূত্রের খবর মেয়েটির মানসিক অবস্থা ঠিক না থাকলেও সে বন্দুক চালনায় প্রশিক্ষিত। তাদের বাংলোর ওয়াশরুমের আয়নায় মেয়েটি “ডিসকোয়ালিফাইড মিরর” বলে একটি শব্দ লিখে রেখেছিল বলে জানানো হয়েছে পুলিশের তরফে। এরকম শব্দ লেখার কি অর্থ তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

যে রাইফেল থেকে ওই নাবালিকা গুলি চালিয়েছে সেটি ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ সূত্রের খবর এই কান্ডের অভিযোগ নাবালিকা নিজে তার পরিবারের পরিচারিকা ও মামার বাড়ি লোকজনদেরকে জানিয়েছেন। পুলিশ খবর পেয়ে শনিবার বিকেল পৌনে চারটে নাগাদ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে নাবালিকার আত্মীয়-পরিজনকে সেখানে দেখতে পান। অপরাধের কথা নাবালিকা স্বীকার করেছে বলেই পুলিশের দাবি। ঘটনাস্থলে ফরেনসিক টিম ও ডগ স্কোয়াড নিয়ে তদন্ত চালানো হয়েছে পুলিশের তরফে।