ভারতের এই মন্দিরে রাত কাটালে নিঃসন্তান মহিলারা গর্ভবতী হয়ে পড়েন

একজন নারী তার জীবনের সম্পূর্ণ আনন্দ পায় সন্তান লাভের পর। সন্তান লাভ তাকে জীবনের সমস্ত চাওয়া পাওয়া পূরণ করে দেয়। তবে এটি তো কোন গাছের ফল নয়, যে চাইলেই পাওয়া যায়। বহু সাধ্য সাধনা করার পর ভগবানের আশীর্বাদ থাকলে তবেই সন্তান লাভ হয়। হাজার দেবতার কাছে মাথা নত করে তবে সন্তান লাভ হয় মানুষের। নিঃসন্তান মানুষের জীবন অর্থহীন হয়ে পড়ে। (365 Reporter Bangla Lifestyle News : After worshiping in this Indian temple woman becomes gorbhoboti pregnant)

হিমাচল প্রদেশের সিমসা মাতা মন্দির এমনই অদ্ভুত ক্ষমতার অধিকারী বলে প্রচলিত রয়েছে সেখানে। এই মন্দিরের যেকোনো নিঃসন্তান মহিলা পূজা দিলে ভগবানের আশীর্বাদে তাদের কোল আলো করে আসে সন্তান। হরিয়ানা ও চণ্ডীগড়ের বহু নিঃসন্তান মহিলারা এই মন্দিরে উপস্থিত হন নবরাত্রি সময়ে।

নবরাত্রির সময়ে এই মন্দিরকে কেন্দ্র করে বিশেষ উৎসব পালন করা হয় যাকে বলা হয় সলিন্দরা। এই কথার অর্থ হল স্বপ্ন পাওয়া। এই সময় সন্তান লাভের আশায় মন্দিরে শুয়ে থাকেন নিঃসন্তান মহিলারা। মানুষের মত অনুযায়ী, একরাত্রি দেবীর আরাধনা করলেই স্বপ্ন পাবেন তারা। তাদের বিশ্বাস এই ভাবেই দেবীর আশীর্বাদ হিসেবে তাদের কোলে আসবে সন্তান। (ei mandir e raat katale pujo dile gorbhoboti hoe poren mohilara. kol alo kore ase sontan)

ভক্তরা বিশ্বাস করেন যে কোন মহিলা যদি স্বপ্নে দেখেন আম, তাহলে তার পুত্র সন্তান হবে। কেউ আবার স্বপ্নে যদি দেখেন ঢেঁড়স, তাহলে তিনি কন্যা সন্তানের জননী হবেন। আবার অনেক সময় স্বপ্নে কাঠ বা পাথর দেখলে মনে করা হয় যে, সারা জীবন তাকে নিঃসন্তান থাকতে হবে। (vokto der biswas – swapne aam dekhle putro sontan ar swapne dherosh dekhle kanya sontan hobe)

নিঃসন্তান স্বপ্ন দেখার পরেও মন্দির থেকে মহিলা যদি সরে না যায়, তাহলে তার শরীরে লাল লাল দাগ হয়ে যায়। ঈশ্বরের উপর অগাধ বিশ্বাস নিয়ে মন্দির চত্বরে এইভাবে শুয়ে থাকেন লাখ লাখ দর্শনার্থী।

after worshiping in this indian temple woman becomes gorbhoboti
ভারতের এই মন্দিরে রাত কাটালে নিঃসন্তান মহিলারা গর্ভবতী হয়ে পড়েন (প্রতীকী ফটো)