বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে নিরীহ হিন্দুদের বাড়ি পুড়িয়ে দিলো মুসলমানরা

Brahmanbaria: যদি হিন্দু হয়ে কোন হিন্দু এলাকাতে জায়গায় বসোবাস করেন তাহলে কোন সমস্যা নেই,সেটা আপনার পক্ষে ভালো। বাংলাদেশে যে সমস্ত সনাতনীরা বাস করে তাদের জীবন এবং হিন্দু এলাকায় থাকা সনাতনীদের জীবন সম্পূর্ণ আলাদা। হিন্দুরা যত নিজেদের এলাকার মধ্যে বসবাস করবে ততই তাদের পক্ষে ভালো হবে। পাকিস্থানে থাকা যে সমস্ত সনাতনী বাস করে তাদের জীবন কতটা দুর্বিষহ হয়তো তারাই জানে। বাংলাদেশে যখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গিয়েছিলেন এবং তারপরে যখন তিনি সেখান থেকে ভারতে ফেরেন পর থেকেই শুরু হয়ে যায় বাংলাদেশজুড়ে তাণ্ডব। (Bangladesh Crime News: Hefazat Muslim attacks on Brahmanbaria Anandanayi Kali Mandir and Hindu family in Bangladesh)

এখনো পর্যন্ত বাংলাদেশে অনেক টাকার সম্পত্তি ক্ষতি করে ফেলেছে ইসলামের কট্টরপন্থীরা। ব্রাহ্মণবাড়িয়া আনন্দময়ী কালী মন্দিরে হামলা করে এবং সেখানে ভাঙচুর করেছে। খবর এসেছে যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার রয়েছে সেই গ্রন্থাগারে তারা আগুন লাগিয়ে দিয়েছে এবং এই পর্যন্তই শেষ নয়, তাঁর সাথে সাথে আরও ছটি হিন্দু বাড়িকে প্রায় পুড়িয়ে ফেলেছে তারা।

এই ঘটনাটি ঘটেছে চট্টগ্রামে। যে ছটি হিন্দুবাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে তারা এখন আশ্রয় হীন হয়ে রাস্তায় থাকছে। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে যে বাংলাদেশী হিন্দুদের অবস্থান ঠিক কোথায় এসে দাঁড়িয়েছে। (Bangladeshe kattar Hefazat Nulimra ottachar torture korlo Hindu der opor, Brahmanbaria, Chatragram te)

ইসলামী ও কট্টরপন্থীরা নীলিমা শীল, বাসুদেব শীল, শেফালী শীল, অর্জুন শীল এর বাড়ি আগুন লাগিয়ে দিয়েছিল যার ফলে তাদের বাড়ি পুড়ে ছারখার হয়ে গেছে। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে যে মুসলিমের এলাকায় সনাতনপন্থী দের অবস্থা শোচনীয়। কখন কীভাবে তাদের ওপর বিপদ এসে পৌঁছায় সেটা হয়তো ভাবাও যায় না।

hefazat muslim attacks on brahmanbaria anandanayi kali mandir and hindu family in bangladesh
বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে নিরীহ হিন্দুদের বাড়ি পুড়িয়ে দিলো মুসলমানরা