গত নয় মাসে অসংখ্য‌বার চিন ও পাকিস্তানের জোড়া আক্রমণে ত্রস্ত ভারত

একদিকে লাদাখ সীমান্তে অশান্তি ছড়াচ্ছে চিন এবং অন্যদিকে সীমান্তের শর্ত লঙ্ঘন করে বারবারই আক্রমণ চালাচ্ছে পাকিস্তান। এক কথায় বলা যায় জোড়া সংকটের মুখে ভারত (India faces huge threat from China and Pakistan)। পরিসংখ্যান তথ্য বলছে সতেরো বছরে প্রথম এতবার নিয়ন্ত্রণ রেখা‌র শর্ত ভেঙ্গে গুলি চালিয়েছে পাকিস্তান (So many times, Pakistan violates LAC conditions and fires)।

গতকাল লোকসভার বাদল অধিবেশনের প্রথম দিনেই রিপোর্ট পেশ করা হয়েছে। গত ১ জানুয়ারি থেকে ৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ৩১৮৬ বার সীমান্তে গুলি চালিয়েছে পাকিস্তান। ভারতের সঙ্গে গুলি বিনিময়ে হয়েছে ২৪২ বার।

সম্প্রতি সংবাদসংস্থা রয়টার্সের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, প্যাংগং লেকের কাছে চিনা সেনাবাহিনীর সঙ্গে চিনা প্রশাসনের যোগাযোগ মজবুত করত কেবল সংযোগ তৈরি করা হচ্ছে চিনের পক্ষ থেকে। এর আগেও কেবল সংযোগ করেছিল চিন। স্যাটেলাইটে ধরা পড়েছিল সেই ছবি।

বিশ্বে করোনা মহামারি আবহে যখন অর্থনীতি নিম্নমুখী, দেশে কর্মসংস্থান কমে চলেছে। এই বিষয়গুলোর দিকে যখন নজর দেওয়া জরুরি তখনই সমস্যা সৃষ্টি করছে চিন ও পাকিস্তানের জোড়া আক্রমণ। ভারতের উপর সৃষ্টি করা চিন ও পাকিস্তানের এই দ্বৈত আক্রমণ দুই দেশের কূটনৈতিক সখ্যতা প্রমাণ করছে (Now China is following Pakistan’s path and violates Line Of Actual Control and attacks India)।

গত চার মাস ধরে লাদাখ সীমান্তে ভারত ও চিন দুই পক্ষের সৈন্য মোতায়েন করা হয়েছে‌। সীমান্ত বরাবর আগামী শীতকালেও সেনাদের সীমান্তে থাকতে হবে বলে ইতিমধ্যেই প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে ভারতীয় সেনা। মঙ্গলবার প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের তরফ থেকে জানানো হয়েছে এখনই লাদাখ সীমান্ত থেকে সেনা সরানোর কোনরকম পরিকল্পনা নেই ভারতের। এরপর পরিস্থিতি কোন দিকে এগোয় সেদিকে তাকিয়ে গোটা দেশ।