রাজস্থানের কিশোরীকে গণধর্ষণ ! ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর নড়েচড়ে বসল পুলিশ প্রশাসন

দিনের পর দিন দেশ ডিজিটাল হচ্ছে কিন্তু প্রতিনিয়ত একটি প্রশ্ন উঠে চলেছে, মেয়েরা কি এখনো সুরক্ষিত ? প্রায় দিনই সংবাদমাধ্যমগুলির মাধ্যমে উঠে আসছে মেয়েদের ওপর চলা অন্যায়, অবিচার, নির্যাতন এবং ধর্ষণের খবর। প্রতিবাদ উঠছে, চলছে আন্দোলন তবুও কিছুতেই কমানো যাচ্ছেনা এর প্রকোপ। ধর্ষিত হচ্ছে একাধিক মহিলা।

সাম্প্রতিক ১৬ বছর বয়সী এক কিশোরী গণধর্ষণের ভিডিও সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হওয়ার পর নড়েচড়ে বসল রাজস্থান পুলিশ প্রশাসন (365 Reporter Bangla News from Rajasthan: 16 Years old girl from Hanumangarh, Pilibanga, Rajasthan gangraped. Police takes step after video goes viral)।

ধর্ষিতা কিশোরী রাজস্থানের হনুমানগড় জেলার অন্তর্গত পিলিবাঙ্গার বাসিন্দা। জানা গেছে কিছু জন অভিযুক্ত প্রথমে কিশোরীকে অপহরণ করেন এবং নিয়ে যান একটি পুরনো বাড়িতে সেখানে চলে তার ওপর চূড়ান্ত শারীরিক নির্যাতন। মারধরের পাশাপাশি করা হয় গণধর্ষণ এবং সম্পূর্ণ ঘটনাটি ক্যামেরাবন্দি করে রাখেন অভিযুক্তরা। গণধর্ষণের পর ভয় দেখানো হয় কিশোরীকে এই বলে, যে এই খবরটা যদি কেউ জানতে পারে তাহলে এই ভিডিও ভাইরাল করে দেবে ধর্ষকরা।

protest procession demanding and end to violence against women
নারী নির্যাতন বন্ধের দাবিতে প্রতিবাদ মিছিল (ফটো ক্রেডিট: Samim Ali on Twitter)

কিশোরীর পরিবার জানিয়েছেন গত ২৯ শে সেপ্টেম্বর দুপুরবেলা তাদের মেয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে ছিল ঠাকুমার বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশ্যে। মাঝপথে তাকে আটক করে তিনটি যুবক, তারপর বেঁধে ফেলা হয় কিশোরীর মুখ এবং তাকে নিয়ে একটি পুরাতন বাড়িতে চলে যায় অভিযুক্ত ৩ জন। সেখানে গিয়ে তার ওপর চালানো হয় চূড়ান্ত শারীরিক নির্যাতন। অবশেষে কিশোরীকে ধর্ষণ করা হয় বলে জানিয়েছেন পরিবার। শুধু তাই নয় সম্পূর্ণ ঘটনাটিকে ভিডিও করে রাখে ধর্ষকরা এবং কিশোরীকে ভয় দেখায়, সে যদি এই খবর কাউকে বলে তাহলে তার ভিডিও ভাইরাল করে দেওয়া হবে।

কিশোরী বাড়ি ফেরার পর সমস্ত ঘটনা খুলে বলে পরিবারকে। গত ৩০শে সেপ্টেম্বর কিশোরীর পরিবার পিলিবাঙ্গা থানায় গিয়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন এবং কঠোর শাস্তির দাবি করেন। জানা গেছে অভিযোগ দায়ের করার পরেও পুলিশ কোনরকম পদক্ষেপ নেয়নি।

কিছুদিনের মধ্যেই দর্শকরা ভাইরাল করে দেয় সেই ভিডিও। ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে টনক নড়ে রাজস্থান পুলিশের। নড়েচড়ে বসেন প্রশাসন। পুলিশ আইপিসি সেকশন ৩৪১, ৩৪২ ৩৫৪ এবং আরও বিশেষ কিছু ধারায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। অবশেষে পুলিশ সমস্ত ঘটনাটিকে খতিয়ে দেখার জন্য তদন্তে নেমেছেন এবং জানিয়েছেন খুব তাড়াতাড়ি অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হবে বলে আশা করছে প্রশাসন।