বিশ্বভারতী কান্ডে বিজেপিকে কটাক্ষ অনুব্রতর, ছাড় পেলেন না সাংবাদিক‌ও

এবার বিশ্বভারতীর পৌষমেলা প্রাঙ্গণে পাঁচিল দেওয়াকে কেন্দ্র অশান্তির বিষয়ে মুখ খুললেন তৃণমূলের দাপুটে নেতা তথা বীরভূম তৃণমূলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। চাঁচাছোলা ভাষায় কটাক্ষধর্মী মন্তব্যের জন্য অনুব্রত মণ্ডল সবসময়ই সংবাদের শিরোনামে উঠে এসেছেন। এদিন বিশ্বভারতীর ঘটনা নিয়ে তিনি জানিয়ে দেন এই ঘটনায় তৃণমূলের সঙ্গে কোন যোগাযোগ নেই। এমনকি এই কাণ্ডের জন্য তিনি বিশ্বভারতীর উপাচার্যকে দায়ী করেছেন।

অনুব্রত মণ্ডল পরিষ্কার জানিয়ে দেন পৌষমেলা প্রাঙ্গণের পাঁচিল ঘেরা নিয়ে যে অশান্তি সৃষ্টি হয়েছে এর জন্য যদি কেউ দায়ী হয়ে থাকে তার জন্য শুধুমাত্র দায়ী উপাচার্য নিজেই। অনুব্রত মণ্ডলকে কাটমানি প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে উনি বলেন, বিশ্বভারতীর উপাচার্য আগে কাটমানি খেয়েছেন। তারপর তৃণমূলের নাম দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন যারা টাকা আগে জমা দিয়েছিল। সেই টাকা তিনি নিজে খেয়ে বসে আছেন।

তবে অনুব্রত মন্ডল জানান যে তিনি নিজে কোনদিন বিশ্বভারতী যাননি। সিবিআই তদন্তের দাবি করেছে বিজেপি এই ঘটনা জানার পর, তিনি বলেন ভালোই হয়েছে। সত্য সবার সামনে আসা উচিত। এরপর সাংবাদিক বৈঠক চলাকালীন এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন যে বিজেপির তরফে অভিযোগ, তৃণমূলের নেতারা সিমেন্ট চুরি করেছেন। তখন অনুব্রত মণ্ডল জানান যে বিজেপির লোকেরাই সিমেন্ট চুরি করে তৃণমূলের ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছে।

তিনি আরো জানান বিশ্বভারতী সম্পর্কে বিজেপির কোন জ্ঞান নেই (Anubrata Mondal slams BJP in Visva Bharati incident, Shantiniketan.)। বিশ্বভারতীর আদর্শ থেকে বিজেপি অনেক দূরে। এমনকি তিনি এও বলেন যে একমাত্র উপাচার্যই এই ঘটনার জন্য দায়ী এবং উপাচার্য বিজেপির সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন।

এরপর এক সাংবাদিক অনুব্রত মন্ডলকে প্রশ্ন করেন যে বিশ্বভারতী মেলা প্রাঙ্গণে সেক্স র‍্যাকেট চলে বলে বিজেপির তরফে অভিযোগ করা হয়েছে। তখন অনুব্রত মণ্ডল নিজের স্বভঙ্গিমায় উত্তর দিয়ে বলেন, আপনি তো সাংবাদিক আপনি এসবের কোন ছবি তুলতে পারেন নি কেন? যখন এসব হচ্ছিল তখন আপনি কি করছিলেন? আপনার চাকরি ছেড়ে দেওয়া উচিত। এই ঘটনায় আর‌ও একবার স্বভঙ্গিমায় সাংবাদিকদের প্রশ্নকে কার্যত অপ্রয়োজনীয় হিসেবে উড়িয়ে দিতে দেখা গেল অনুব্রত মন্ডলকে।