হাত কেটে রক্ত দিয়ে অন্বেষার নাম লিখলেন ভক্ত, আতঙ্কিত নায়িকা ভৎসনা করলেন তাকে

পুরনো দিনের হিন্দি সিনেমা কিংবা বাংলা সিনেমাতে প্রায়শই নায়ক কিংবা নায়িকা হাত কাটা কাটি করতেন। আর সেখানে নায়ক ছুরি বা ব্লেড এর মাধ্যমে হাত কেটে সেই রক্ত দিয়ে নায়িকার নাম লিখে ভালোবাসা প্রকাশ করতেন। অনেক নায়ক আবার বুকের রক্ত দিয়েও নায়িকার নাম লিখে দেখাতেন। তবে এখন ট্যাটুর যুগ ফলে এই সমস্ত ঘটনা বন্ধ হয়ে গিয়েছে বললেই চলে। কিন্তু এই পুরনো ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটালেন একজন ভক্ত। হাত কেটে রক্ত দিয়ে লিখলেন এই পথ যদি না শেষ হয় সিরিয়ালের নায়িকা অন্বেষা হাজরা’র নাম। (Fan does this with Annwesha Hazra and she becomes angry)

মূলত এই ঘটনাটি ঘটেছে জুলাইয়ের 14 তারিখে। সেখানে অন্বেষার এক ভক্ত ছুরি দিয়ে নিজের হাতের খানিকটা কেটে ফেলেন এবং সেই রক্ত দিয়ে সাদা কাগজে অন্বেষার নাম এবং পদবী লিখে ফেলেন। আর সেই পোস্ট তিনি ইনস্টাগ্রামে করে ফেলেন। এজন্য ভক্ত তার শরীরের রক্ত দেবীর উদ্দেশ্যে অর্পণ করলেন।

আর স্বাভাবিক ভাবেই যা ঘটার তাই ঘটলো। দেবী অন্বেষা হাজরা রণচন্ডী মূর্তি ধারণ করলেন। তিনি প্রথমে আঁতকে ওঠেন। তারপর তিনি ভক্তকে ভীষণভাবে ভৎসনা করলেন। তার মতে এই সমস্ত কাজ সাধারণত মূর্খরা করে থাকে।

মূলত অন্বেষার একজন বন্ধু তাকে এই পোষ্ট প্রথমে দেখিয়েছিল। আর সেই পোস্ট দেখেই রাগে ফেটে পড়েন নায়িকা। তিনি বলেন, এইভাবে কেউ যদি নিজের হাত কেটে এবং নিজেকে কষ্ট দিয়ে অন্যের প্রতি ভালোবাসা দেখায় তা মোটেই ঠিক কাজ নয়। ভক্তরা যেন সুস্থ এবং স্বাভাবিক ভাবে সিনেমা শিল্পীদের পাশে থাকে।

আর স্বাভাবিকভাবে উৎসাহ দিলেই শিল্পীরাও কাজ করার আগ্রহ পাবেন। আর ওই ভক্তের ব্যবহার সম্পূর্ণ নির্বুদ্ধিতার কাজ বলে তিনি জানান। চলুন আপনাদেরকে জানিয়ে দেই তিনি ঠিক কি বলেছেন।

https://www.facebook.com/photo.php?fbid=1453184451710173&set=a.128122810883017&type=3

অন্বেষা বললেন,”প্লিজ প্লিজ না। না মানে না। এরকম ভাবে নিজের হাত কেটে নিজেকে কষ্ট দিয়ে পৃথিবীর কারোর জন্যই ভালোবাসা জাহির করতে যাবেন না। আমার বন্ধু আমার মেসেজটা দেখালো। আমি একদমই এই ধরনের মেসেজ কে নিজের প্রাপ্তি বলে মনে করি না। বরং আপনাদের সুস্থ স্বাভাবিক হয়ে আমাদের পাশে থাকলে আমাদের চলার পথটা সুন্দর হবে। আমি অনুরোধ করছি এই ভাবে নিজেকে কষ্ট দিয়ে কারো জন্য ভালোবাসা জাহির করবেন না। নিজের কথাটা ভাবুন।”

সত্যি নায়িকার কথায় কিন্তু যুক্তি রয়েছে। ওই ভক্ত বেকার রক্ত দিয়ে নায়িকা কে ইমপ্রেস করতে গেল। এর থেকে সে যদি ট্যাটু করে আসতো তাহলে নায়িকার নাম সারা জীবন তার শরীরে থেকে যেত। ওই রক্তমাখা চিঠির কাগজ হারিয়ে গেলেই তো সব শেষ!