“ভালোবাসা দোষের হলে, আমি জেলে যেতে প্রস্তুত”- রিয়া চক্রবর্তী

এই মুহূর্তে সুশান্ত সিং রাজপুত এর মৃত্যুর মামলা নিয়ে তোলপাড় গোটা ভারত বর্ষ (Sushant SIngh Rajput Death Mystery )। আর তার মৃত্যুতে প্ররোচনার জন্য সবথেকে বেশি দোষারোপ করা হচ্ছে রিয়া চক্রবর্তীর ওপর। আর ইতিমধ্যে রিয়ার ভাই সৌভিক কে এনসিবি অফিসাররা গ্রেফতার করেছে। অপরদিকে এনসিবির তরফ থেকে রিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ডেকে পাঠানো হয়। তারপর দেখুন কি ঘটলো।

এবার রিয়ার আইনজীবীর নাম হলো সতীশ মানশিন্ডে (Satish Maneshinde- Lawyer of Rhea Chakraborty)। তিনি তার মক্কেল রিয়া চক্রবর্তী জন্য ক্রমাগত কাজ করে চলেছেন। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করলেন। তিনি জানালেন যে, প্রেম ভালোবাসা যদি দোষের হয়ে থাকে তাহলে সুশান্তকে ভালোবাসার কারণে গ্রেফতার হতে রাজি আছেন আমার মক্কেল রিয়া চক্রবর্তী। প্রকৃতপক্ষে সোশ্যাল মিডিয়া সহ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম থেকে রিয়া চক্রবর্তী উপর প্রচন্ড পরিমানে দোষারোপ করা হচ্ছে। আর তিনি সেকারণেই মুখ খুললেন।

তার কথা অনুযায়ী, রিয়াকে এই মুহূর্তে ডাইনিদের সাথে তুলনা করা হচ্ছে। যেন মনে হচ্ছে সবাই ডাইনি খুঁজে বের করবে। আর রিয়া যদি সুশান্তকে ভালোবেসে অপরাধ করে থাকে, তাহলে এই পরিণতির দায় স্বীকার করতে প্রস্তুত রিয়া চক্রবর্তী। তাছাড়া তার কথা অনুযায়ী রিয়ার কোন দোষ নেই। তিনি জানালেন,”রিয়া সম্পূর্ণ নির্দোষ। আর তাই সিবিআই, ইডি, এনসিবি এবং বিহার পুলিশ এর তরফ থেকে মামলা দায়ের করার পরও তিনি কোর্টে জামিন পাওয়ার জন্য এপ্লিকেশন করেননি। আর এটা সেই ক্ষেত্রে ঘটে যখন আসামি নির্দোষ হয়।”

রিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকার পরপরই এনসিবির অফিসে তিনি পৌঁছে যান (Rhea Chakraborty, Ex girlfriend of Sushant Singh Rajput reaches NCB quarter for cooperating with investigation)। সেখানে 5 জন সদস্যের একটা টিম পুরো তদন্ত পরিচালনা করছেন। এনাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে ডিরেক্টর সমীরবাবু, ডেপুটি ডিরেক্টর কেপিএস মালহোত্রা এবং আরো পাঁচজন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, মাদকচক্রের অভিযোগে 24 বছর বয়সী সৌভিক চক্রবর্তী অর্থাৎ রিয়া চক্রবর্তীর ভাই (Showik Chakraborty- brother of Actress Rhea Chakraborty) কে গ্রেপ্তার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা। তাছাড়া সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডাকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ছেলের গ্রেপ্তার করার সংবাদে ভেঙে পড়েন বাবা ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী। তিনি তার দুঃখের কথা জানিয়ে দেন সবার সঙ্গে।

রিয়ার বাবা অভিজিৎ চক্রবর্তী বলছেন,”ভারতকে অনেক অভিনন্দন। আমার ছেলেকে গ্রেফতার করা হলো। এরপরই আমার মেয়ের পালা। আর ভাবতেও চাইনা এরপরে কার পালা। এইভাবে এক মধ্যবিত্ত পরিবার সম্পূর্ণ ধ্বসে গেল। তবে উপযুক্ত বিচার পাওয়ার জন্য সবকিছু ঠিকই আছে। জয় হিন্দ।”