একটি মাত্র এলাচ আপনার জীবনে আনতে পারে অনেক পরিবর্তন

সুগন্ধি মসলা হিসেবে চিরকালই এলাচের যথেষ্ট মর্যাদা রয়েছে। বাঙালি রান্না ঘরে খুব সহজেই পাওয়া যায় একে। এটি গরম মসলা এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। স্বাস্থ্যের জন্য এলাচের উপকারিতা গুনে শেষ করা যাবেনা। নিরামিষ খাবার হোক অথবা আমিষ খাবার, সবকিছুকেই সুস্থ করে তুলতে এলাচের জুড়ি মেলা ভার। অনেকে মসলা চা খাবার জন্য এলাচ ব্যবহার করে থাকেন। মুখসুদ্ধি হিসাবেও ব্যবহার করেন অনেকেই এটি (saririk somossa durikorone elach- elaichi- cardamom)।

এলাচ গাছ দেখতে অনেকটা আদা গাছের মত। এটি অনেকটা লম্বাকৃতি হয় এবং ধূসর বা তামাটে রঙের হয়। সাধারণত বছরে দুবার এলাচ জন্মায়। নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে জিএসটি উৎপাদিত হয় তা সব থেকে উৎকৃষ্ট। তবে রান্না করা ছাড়াও শারীরিক সমস্যা দূরীকরণে এলাচের গুনাগুন অসামান্য। জেনে নিন প্রতিদিন একটি মাত্র এলাচ খাওয়ার ফলে আপনি কিভাবে শারীরিক সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন (365 Reporter Bangla lifestyle and health tips : benefits of using cardamom)।

saririk somossa durikorone elach elachi cardamom
গ্যাস্ট্রিক সমস্যা, শ্বাসকষ্ট, হাঁপানি, রূপচর্চা ইত্যাদি কাজে এলাচ (ফটো ক্রেডিট: ইন্ডিয়ামার্ট)

গ্যাস্ট্রিক সমস্যা: এলাচ গ্যাস্ট্রিক সমস্যা প্রতিরোধ করে আপনাকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করে। এক কাপ জলে যদি একটি এলাচ থেঁতো করে পান করতে পারেন, তাহলে আপনার হজমের সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে (Cardamom to prevent gastric problems)।

শ্বাসকষ্ট: মধু, লেবুর রস এবং গরম জলের সাথে একটি মাত্র এলাচ মিশিয়ে পান করলে আপনার শ্বাসকষ্ট দূর হয়ে যাবে।

হাঁপানি এবং হৃদ রোগ দূরীকরণ: হাঁপানি এবং হৃদ রোগ নিরাময়ে এলাচ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এছাড়া এটি রক্তসঞ্চালনে সহায়ক। এলাচের গুঁড়া সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেলে হৃদরোগের উপকার পাওয়া যায়।

চুলকানি প্রতিরোধ: অনেক সময় মলম ব্যবহার করেও চুলকানি প্রতিরোধ করা যায় না। এক্ষেত্রে যদি এলাচ কে চন্দন এর মত ঘষে নেওয়া যায় তাহলে উপকার পাওয়া যাবে।

মাথাব্যথা: গরম জলে তে এলাচ গুঁড়া এবং মধু দিয়ে ফুটিয়ে যদি চা খাওয়া যায়, তাহলে নিমিষেই দূর হয়ে যাবে আপনার মাথা ব্যথা।

রূপচর্চা: এলাচে যেহেতু প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে, তাই কারোর মুখে যদি কালো ছোপ ছোপ দাগ থাকে,তাহলে এলাচ বেটে নিয়মিত লাগাতে পারলে দাগ দূর হয়ে যাবে।

কোষ্ঠকাঠিন্য: কোষ্ঠকাঠিন্য থাকলে সেই ব্যক্তি যদি এলাচ, বেল এবং দুধের সঙ্গে মিশিয়ে ভালো করে পান করতে পারে, তাহলে কোষ্ঠকাঠিন্য এবং জ্বর কমে যাবে।

পেশী টান এর সমস্যা: কখনো ভারী জিনিস তুলতে গিয়ে যদি শরীরে টান লেগে যায় তাহলে ছোট অথবা বড় এলাচ গরম জলে গুলে থেকে খাওয়ালে তখনই উপশম হয়ে যাবে।

গায়ের দুর্গন্ধ: বড় এলাচ বেটে গায়ে মেখে কিছুক্ষণ পরে যদি স্নান করে ফেলেন, তাহলে অচিরেই আপনার গায়ে দুর্গন্ধ থেকে আপনি মুক্তি পাবেন।

মুখে দুর্গন্ধ: মুখের দুর্গন্ধের জন্য অব্যর্থ ওষুধ হল এলাচ। এটি আর যদি আপনি মুখে রাখতে পারেন, তাহলে দেখবেন সমস্ত দুর্গন্ধ দূর হয়ে গেছে।