নাবালক ছাত্রের সাথে যৌন খেলায় প্রেগন্যান্ট ম্যাডাম !

তুমুল হইচই পড়ে গেল 35 বছরের ম্যাডাম এবং 15 বছরের নাবালক ছাত্রের ঘটনা নিয়ে। কামের তাড়নায় 15 বছর বয়সী ছাত্রের সঙ্গে যৌন খেলায় মেতে উঠেছিলেন ওই ম্যাডাম। আর সব থেকে হইচই ফেলে দেওয়া খবর হলো যে, ছাত্রের সঙ্গে সঙ্গম করার ফলেই প্রেগনেন্ট হয়ে গিয়েছেন ওই ম্যাডাম (Madam involves in a se xual relationship with her 15 years old adolescence student and becomes pregnant. Nabolok Jouna Khela)। আর বার্কিংহামশায়ারের শিক্ষিকা নিজে সেই কথা স্বীকার করেছেন।

এই মুহূর্তে কোর্টে ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। আর সেখান থেকেই পাওয়া গেল যে, নিজের বিদ্যালয়ের ওই নাবালক ছেলেটিকে গরম টেক্সট, নিজের ন্যাংটো ফটো এবং ফিঙ্গারিং এর ভিডিও পাঠাতেন ওই ম্যাডাম। ওই ছেলেটির বন্ধুরা তার ফোনে ঐ সমস্ত মেসেজ দেখে ফেলে। আর তাদের মুখ হা হয়ে যায়। এরপর তারা তাদের গার্জিয়ানদের ব্যাপারটা জানিয়ে দিয়েছেন। ফলে সবার সামনে ব্যাপারটা ফাঁস হয়ে যায়।

ছেলেটির ওই বন্ধু কোর্টে গিয়ে তাদের মধ্যকার পাঠানো ম্যাসেজের কথা বলে। সে জানিয়েছে যে, সেকেন্ড ডেটে যাওয়ার পরপরই প্রথমবারের মতো তাদের মধ্যে যৌন মিলন ঘটে যায়। এর পরের দিন ওই ম্যাডাম তার ছাত্রকে মেসেজ করেছিলেন। আর স্ন্যাপচ্যাটের ওই মেসেজে তিনি বলেছিলেন, “তোমার যৌনাঙ্গ আমার স্বামীর থেকেও বৃহৎ।”

জানা গেল যে, ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসের মধ্যভাগ থেকে তাদের দুজনের মধ্যে উদ্দাম যৌন খেলা চলত। তাছাড়া স্কুল ক্যাম্পাস এর মধ্যেই তারা যে কতবার সঙ্গম করেছেন তা হাতে গোনার বাইরে। অপরদিকে তারা স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে গাড়িতে এবং কি মাঝেমধ্যে বাগানেও তারা তাদের যৌনলীলা চালিয়ে যাচ্ছিল।

তবে স্ন্যাপচ্যাটে এই মেসেজটি ভুলবশত সোশ্যাল মিডিয়াতে ফাঁস হয়ে যায়। ফলে এই ঘটনাটি সবাই জেনে যায়। আর এর মধ্যে ওই ম্যাডাম গর্ভবতী হয়ে পড়েন। তবে তিনি তার স্বামীকে মিথ্যা কথা বলেন। তিনি জানান যে এই সন্তানের পিতা তার স্বামী। তবে নাবালক স্টুডেন্ট এই কথা মানতে রাজি নয়।

তার ছাত্রটি জানালো যে, তারা যৌন মিলনের সময় কোন প্রকার সুরক্ষা বা কনডম ব্যবহার করত না। ফলে তার ম্যাডাম গর্ভবতী হয়ে পড়তে পারেন। অপরদিকে ওই ম্যাডামের হাসবেন্ড বললেন যে, তার বউ প্রেগন্যান্ট হওয়ার সময় তাদের মধ্যে সম্পর্ক খুব একটা ভালো ছিল না। আর তাই তিনি প্রথম দিকে তার বউয়ের মা হওয়ার খবরে খুশি হয়ে ওঠেন। তবে পরবর্তীকালে প্রকৃত ব্যাপারটা তিনি জেনে যান।

স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনাতে সবার মুখ হা হয়ে গিয়েছে। শিক্ষিকার মত এত বড় একটা সম্মানজনক স্থানে থেকে কী প্রকারে নিজের স্টুডেন্টের সাথে যৌন মিলন করতে পারলেন তিনি ? তাছাড়া 16 বছরের নিচে কোন ছেলের সাথে যৌন মিলন করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। এই মুহূর্তে এই মামলাটির শুনানি চলছে আইসেলবারি ক্রাউন আদালতে।