“আমরা করোনার প্রতিষেধক আবিষ্কার করেছি!” দাবি ক্যালিফোর্নিয়ার বায়োটেক সংস্থার

করোনা রোগ এখন বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে। এর মাঝে আশার আলো দেখতে পাওয়া গেল। কারণ করোনার অ্যান্টিবডি আবিষ্কার হয়ে গেছে। সান দিয়েগো তে অবস্থিত সোরেন্টো থেরাপিউটিকস নামক একটি বায়োটেক সংস্থা দাবি করেছে আমরা করোনা রোগের নির্মূল করতে পারে এরকম অ্যান্টিবডি আবিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছি। আর তারা ‘পেট্রি ডিশ’ নামে নামে একটি পরীক্ষা করেছে। তাতে তাদের আবিষ্কৃত এসটিআই-1499 অ্যান্টিবডি সুস্থ মানুষের কোশে করোনা ভাইরাসের প্রবেশ সম্পূর্ণরূপে আটকে দিয়েছে।

এই অ্যান্টিবডি নিয়ে প্রি-ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল-এর পর সোরেন্টো থেরাপিউটিকস পরবর্তী কর্মকাণ্ডের দিকে এগোচ্ছে। আর এই খবরটি পাওয়া গেছে ফক্স নিউজ থেকে। মূলত নিউইয়র্কের এমটি সিনাই স্কুল অব মেডিসিন এর সাথে পার্টনারশিপ করেছে সোরেন্টো। আর তারা একসাথে ড্রাগ ককটেল তৈরির জন্য পরিকল্পনা করছে। আর এরমধ্যে এসটিআই-1499 অন্যতম।

এক সংবাদ সম্মেলনে সোরেন্টো বলেছে যে তারা প্রতিমাসে দু লাখ পর্যন্ত এন্টিবডি তৈরি করতে পারবে। এই সংস্থাটি ইউএস ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন(এফডিএ) থেকে অনুমতি পাওয়ার জন্য এপ্লিকেশন করেছে কিন্তু এখনো সেই সংস্থা থেকে অনুমতি পায়নি। এদিকে এই ঘোষণার পরই তাদের শেয়ারের মূল্য প্রায় 200 শতাংশেরও বেশি বেড়ে গিয়েছে।

সংস্থার প্রধান নিবার্হী কর্মকর্তা ড. হেনরি জি ফক্স নিউজ কে বলেছেন, “আমরা জোর দিয়ে বলছি করোনা প্রতিরোধের ওষুধ পাওয়া গেছে আর এটি শতভাগ কার্যকরী হবে। এসটিআই-1499 যদি আপনার শরীরে প্রবেশ করানো হয় তবে আর সামাজিক দূরত্বের কোনো দরকার নেই। সব জায়গায় চলাফেরা করতে পারবেন নির্ভয়ে।”

মূলত মানুষের কোষের জন্য প্রতিরোধমূলক জাল হিসেবে কাজ করবে এটি। ভাইরাসটিকে প্রাথমিক প্রবেশদ্বার থেকে মানুষের কোষের রিসেপ্টর এসিই-2 এর থেকে ব্লক করে। ড. হেনরি জি আরো বলেন, এসটিআই-1499 অ্যান্টিবডি মানুষের শরীরে থাকা ভাইরাসটিকে চতুর্দিক থেকে ঘিরে ধরে এবং সেটিকে আটকে ফেলে দেহ থেকে নির্মূল করতে সক্ষম হয়।

তবে মানুষের শরীরে অ্যান্টিবডি এখনো পরীক্ষা করা হয়নি। সুতরাং এটি মানুষের শরীরের ভেতরে আদৌ কি রকম আচরণ করবে তা অজানা এবং এর মারাত্মক পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া থাকতেও পারে বা নাও থাকতে পারে। সেটিও সম্পূর্ণ অজানা।

গত ডিসেম্বর মাসে চীনের উহান শহর থেকে মহমারীটি গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে। এখনো পর্যন্ত পৃথিবীজুড়ে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় 46 লাখেরও বেশি লোক। আর তিন লাখেরও বেশি মানুষ এরই মধ্যে মারা গেছেন। তবে আশার আলো দেখা গেছে এরই মধ্যে। কারন 17 লাখ 58 হাজার এর বেশি মানুষ করোনা থেকে এরই মধ্যে সুস্থ হতে সক্ষম হয়েছেন। সবথেকে বেশি আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে যেখানে প্রায় 15 লাখের কাছাকাছি ছড়িয়ে গেছে। আর মৃত সর্বোচ্চ, প্রায় 88 হাজার।

সূত্র: ফক্স নিউজ। লিংক: https://www.foxnews.com/science/covid-cure-california-biopharmaceutical-coronavirus-antibody-breakthrough

হাই বন্ধুরা, প্রতিদিনের গুরুত্বপূর্ণ খবর পাওয়ার জন্য bangla.365reporter বুকমার্ক করে রাখুন। আর ফেইসবুক, টুইটার এবং পিন্টারেস্টে আমাদের সঙ্গে কানেক্ট করতে পারেন। ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.